রবিবার, জুন ১৬

Exclusive: রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য সুখবর, শীঘ্রই জমা পড়বে বেতন কমিশনের রিপোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: খুব তাড়াতাড়ি ষষ্ঠ বেতন কমিশনের রিপোর্ট জমা পড়বে নবান্নে। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পরে জানিয়ে দিলেন কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকার। বৃহস্পতিবার নবান্নে দীর্ঘ সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয় তাঁর। এর পরেই অভিরূপবাবু দ্য ওয়ালকে জানিয়েছেন, “খুব ভালো আলোচনা হয়েছে। শীঘ্রই কমিশনের রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে।”

এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পরেই নবান্ন ছেড়ে চলে যান বেতন কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকার। পরে টেলিফোনে দ্যা ওয়ালকে জানান খুব শীঘ্রই রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা।

দ্য ওয়াল- আপনি তো আজ নবান্নে এসেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করলেন।

অভিরূপ সরকার- হ্যাঁ মিটিং করেছি। খুব ভালো আলোচনা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে। খুবই ভালো। অনেকক্ষণ কথা হয়েছে। আমি খুব তাড়াতাড়ি রিপোর্ট জমা দিয়ে দেব।

দ্য ওয়াল- আপনি তো এর আগে বলেছিলেন বেতন কমিশনের সময়সীমা বাড়াতে চাননি আপনারা। রাজ্য সরকার বাড়িয়েছে। কী বলবেন?

অভিরূপ সরকার- ওটা নিয়ে আমি আর কোনও মন্তব্য করব না। অনেক বিতর্ক হয়েছে ওটা নিয়ে। তবে আবার বলব, আজ খুব ভালো আলোচনা হয়েছে। আমি খুব শীঘ্রই রিপোর্ট জমা দিয়ে দেব।

উল্লেখ্য, গত ১০ জুন মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের পরি বিতর্ক তৈরি হয়। সেদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ডিসেম্বরে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের রিপোর্ট জমা পড়লে যতটা সম্ভব বেতন বাড়ানো হবে। কিন্তু বেতন বাড়াতে গিয়ে রাজ্য সরকারের জনপ্রিয় প্রকল্পের কোনওটি বন্ধ করতে চান না তিনি। এরই সঙ্গে সঙ্গে তিনি বলেন, “কমিশন এখনও কাজ শেষ করতে পারেনি। তাই সরকারও কিছু করতে পারছে না। কমিশন রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় চেয়েছে।” এনিয়ে তিনি কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকারকে ডেকে কথা বলবেন বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই বক্তব্যের পরে অভিরূপ সরকারের প্রতিক্রিয়া জানতে ফোন করতে ‘দ্য ওয়াল’-কে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, “কমিশন সময় চায়নি। এটা ভুল কথা। সরকারই কমিশনের মেয়াদ বাড়িয়েছে।”

২০১৫ সালের ২৭ নভেম্বর, অর্থনীতিবিদ অভিরূপ সরকারের নেতৃত্বে ষষ্ঠ বেতন কমিশন গঠন করা হয়েছিল। এখনও পর্যন্ত মোট পাঁচ বার কমিশনের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের পরে শেষবার সাত মাসের জন্য কমিশনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে যার সময় শেষ হচ্ছে আগামী ২৬ ডিসেম্বর। এনিয়ে অভিরূপ সরকারের বক্তব্য, প্রথম তিন বার সময় বাড়ানোর আবেদন করেছিল কমিশন। কিন্তু শেষ দু’বার সরকারই কমিশনের মেয়াদ বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে।

এদিন সেই প্রসঙ্গ এড়িয়ে গিয়েছেন অভিরূপ সরকার। ১০ জুন তিনি কমিশনের রিপোর্ট তৈরি কিনা সে প্রশ্নের উত্তর দিতে চাননি। এদিনও তাঁর বক্তব্যে অবশ্য সেটা স্পষ্ট যে বেতন কমিশনের রিপোর্ট তৈরি।

Comments are closed.