শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষকে নিয়ে কাজ করেছেন, আমাদের মুখ্যমন্ত্রীও তাই, বললেন পার্থ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোমবার দুপুরে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নোবেল পাওয়ার খবর কার্যত ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়েছিল বাঙালির ফোনে ফোনে। সন্ধেবেলা বালিগঞ্জের বাড়িতে বসে রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেছিলেন, “সবার মতো আমারও গর্ব হচ্ছে। কিন্তু শতাংশের বিচারে আমার গর্বটা .১ হলেও বেশি। কারণ অভিজিৎবাবুও বালিগঞ্জের বাসিন্দা।” মঙ্গলবার রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় নোবেলজয়ী বাঙালির স্তূতি গাইতে গিয়ে এক বন্ধনীতে ফেলে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।

এ দিন পার্থবাবুকে জিজ্ঞেস করা হয়, অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় তো কয়েকদিন পরেই কলকাতায় আসছেন। সরকারের তরফ থেকে কি কোনও সংবর্ধনা দেওয়া হবে? উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “আমরা আজকে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেছি। এরপর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব।” এরপরই পার্থবাবু বলেন, “নিঃসন্দেহে এটা বাংলা ও বাঙালির সংস্কৃতি। তাঁর (পড়ুন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের) যে বইয়ের লেখা, তাঁর যে বিষয়বস্তু তা সম্পূর্ণ মানুষকে নিয়ে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনীতিও একেবারেই মানুষকে নিয়ে। মানুষকে বাদ দিয়ে না। বিষয়টি অত্যন্ত গর্বের। আনন্দের। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে প্রেসিডেন্সি কলেজের মেন্টর করেছিলেন।”

সাউথ পয়েন্ট ত্থেকে পাশ করার পর ১৯৮১ সালে প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক হন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৯৮৩ সালে দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ করেন। ১৯৮৮ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করেন তিনি।

অমর্ত্য সেনের ২১ বছর বছর সেই অর্থনীতিতেই নোবেল পেলেন কোনও বাঙালি। ঘটনাচক্রে তিনি আবার অধ্যাপক সেনেরই ছাত্র। নোবেল পেয়েছেন অভিজিৎবাবুর স্ত্রী এস্থার ডাফলো ও মাইকেল ক্রেমার। আগামী ২৩ তারিখ কলকাতায় আসার কথা অভিজিৎবাবুর।

পড়ুন, দ্য ওয়ালের পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.