বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

সংগঠনের ব্যাপারে ডেকেছিল, নাথিং সিরিয়াস: সিবিআইয়ের জেরার পরে পার্থ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দুপুর দুটো দশে সিজিও কমপ্লেক্সে ঢুকেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বের হন প্রায় সন্ধে ছটা নাগাদ। সাংবাদিকরা দাঁড়িয়েই ছিলেন তাঁকে প্রশ্ন করার জন্য। বেরিয়েই পার্থবাবু জানিয়ে দিলেন, “আমাদের সংগঠনের ব্যাপারে ডেকেছিল। কথাবার্তা হয়েছে। নাথিং সিরিয়াস।”

প্রায় চারঘণ্টা সিবিআই দফতরে ছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। স্বাভাবিক ভাবেই তাঁকে প্রশ্ন করা হয় দাদা এতটা সময় লাগল, কী জিজ্ঞাসাবাদ করল? জবাবে পার্থবাবু বলেন, “বসেছিলাম। এগুলোই তো তোমাদের বড় বড় প্রশ্ন। বলে না, হাইকম্যান্ডে থাকলাম অনেকক্ষণ। আসলে বাথরুমে থাকলাম।”

এ দিন সকালেই জানা যায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে জেরার জন্য ডেকেছে সিবিআই। সূত্রের খবর, তৃণমূলের মুখপত্র ‘জাগোবাংলা’র তহবিলে চিটফান্ডের টাকা পয়সার যোগসাজশ নিয়েই এই জিজ্ঞাসাবাদ। এর আগে দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী ও রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনকে ডেকে জেরা করেছিলেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা।

এ দিনই চিটফান্ড কাণ্ডে জেরা করা হয় কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকেও। এ দিন সকালে রাজীবের হয়ে দু’জন সিআইডি আধিকারিক সিবিআই দফতরে চিঠি নিয়ে যান। সূত্রের খবর, সেই চিঠিতে রাজীব বলেন, যেহেতু ১৯ তারিখ হাইকোর্টে মামলা রয়েছে, সেহেতু তারপরই তিনি হাজিরা দেবেন। কিন্তু সিআইডি-র ওই দুই আধিকারিককে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা এজেন্সির পক্ষ থেকে স্পষ্ট বলে দেওয়া হয়, আসতেই হবে রাজীব কুমারকে। অবশেষে বেলা দুটো নাগাদ তিনি পৌঁছন সিজিও কমপ্লেক্সে।

Comments are closed.