বুধবার, মার্চ ২০

The Wall Impact: থাপ্পড় কাণ্ডের জেরে আলিপুরদুয়ারের ডিএম’কে আদিবাসী উন্নয়নে বদলি করল নবান্ন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফালাকাটা থানার ভিতর যুবককে বেধড়ক পেটানোর ঘটনায় জেলাশাসক নিখিল নির্মলকে আগেই বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠিয়েছিল নবান্ন। নানা মহলের চাপে এ বার তাঁকে বদলি করল নবান্ন। পাঠানো হলো আদিবাসী উন্নয়ন পর্ষদের ম্যানেজিং ডিরেক্টর করে। তাঁর জায়গায় আলিপুরদুয়ারের নতুন ডিএম হচ্ছেন শুভাঞ্জন দাস। তিনি ছিলেন স্বাস্থ্য দফতরের অতিরিক্ত সচিব।

নিখিল নির্মলকে সরানোর জন্য মঙ্গলবারই জাতীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে চিঠি পাঠিয়েছিল নবান্ন। যেহেতু এখন গোটা দেশ জুড়ে ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ চলছে, তাই সমস্ত জেলা শাসকই নির্বাচন কমিশনের অধীনে। বদলি করতে গেলে তাই কমিশনের অনুমতি প্রয়োজন। দিল্লি থেকে সবুজ সংকেত আসতেই বদল করা হলো ডিএম-কে।

দ্য ওয়াল-ই সবার প্রথম থানার ভিতর সস্ত্রীক ডিএম-এর থাপ্পড় মারার খবর প্রকাশ করেছিল। মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় ওই ক্লিপিং। রাজ্য ছাড়িয়ে গোটা দেশে ছি ছি পড়ে যায় ডিএম-এর ‘তাণ্ডব’ দেখে। আইএএস অস্যোসিয়েশনও এই ঘটনায় ডিএম-এর শাস্তির দাবিতে সরব হয়। একটি অংশের মধ্যে এ-ও ক্ষোভ ছিল, পুলিশ কেন নির্বাক দর্শকের ভূমিকা পালন করছিল ওই সময়। কেন আটকায়নি ডিএম এবং তাঁর স্ত্রী নন্দিনী কৃষ্ণণকে? বুধবার ফালাকাটার আইসি-কেও বদলি করে দেওয়া হয়। তাঁর জায়গায় আনা হয় কোচবিহারের কোতোয়ালি থানার আইসি-কে। কোচবিহার কোতোয়ালিতে পাঠানো হয় ফালাকাটার আইসি-কে।

বিনোদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, ফেসবুকের একটি গ্রুপে ডিএম-এর স্ত্রীকে অশালীন মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এই অভিযোগে প্রথমে তাঁকে থানায় তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। পরে ডিএম এবং তাঁর স্ত্রী এসে শুরু করেন ‘তাণ্ডব।’ ওই ভিডিও ফুটেজে শোনা গিয়েছিল, ডিএম বলছেন, “আমার জেলায়, আমার উপরে কেউ কথা বলবে না।” এই সূত্রে উঠে আসে ডিএম-এর শাশুড়ি-সহ আত্মীয়দের ক্ষমতার অপব্যবহারের নানা অভিযোগও। শেষমেশ তাঁকে উত্তরবঙ্গের জেলা থেকে আদিবাসী উন্নয়ন দফতরে পাঠিয়ে দিল রাজ্যের সচিবালয়।

Shares

Comments are closed.