বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

#Breaking: শোভনের নিরাপত্তা ফেরাল নবান্ন, ভাইফোঁটার পর কি এ বার দলে ফেরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কলকাতার মেয়র ও মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায় যখন গোলপার্কের ফ্ল্যাটে স্বেচ্ছা নির্বাসন নিয়েছিলেন, তখনও ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরির পুলিশি নিরাপত্তা ছিল তাঁর। কিন্তু সেই শোভন, দিদি-র এক কালের ‘কানন’ বিজেপি-তে যোগ দিতেই নিরাপত্তা সরিয়ে নেয় নবান্ন। মঙ্গলবার কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন শোভন ও তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তার তিনদিনের মধ্যেই শোভনকে ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরির নিরাপত্তা ফিরিয়ে দিল নবান্ন।

মঙ্গলবার ভাইফোঁটার দিন সবাইকে চমকে দিয়ে কালীঘাটে মমতার বাড়িতে যান শোভন-বৈশাখী। সূত্রের খবর, ঘরে ঢুকেই দিদির পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেন বৈশাখী। তারপর এক বাক্স চকোলেট দেন। দিদিকে প্রণাম করেন তাঁর স্নেহের কানন তথা কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। শোভনকে ভুঁড়ি কমানোর পরামর্শ দেন মমতা। এমনকি কিছু ওষুধের কথাও বলেন। বেশ কয়েক ঘণ্টা দিদির বাড়িতেই ছিলেন শোভন-বৈশাখী।

সূত্রের খবর, সেই আলোচনাতেই শোভনের নিরাপত্তার প্রসঙ্গ ওঠে। সে দিন রাতে গোয়েন্দা বিভাগের কিছু অফিসার শোভনের বাড়িতে গিয়ে নিরাপত্তার বিষয়ে আলোচনা করেন। তারপরেই শুক্রবার নবান্নর তরফে শোভনের নিরাপত্তা ফিরিয়ে দেওয়ার কথা বলা হয়। জানানো হয়েছে, আটজন নিরাপত্তারক্ষী পাবেন শোভন।

শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নিরাপত্তা ফিরিয়ে দেওয়ার পরেই রাজনৈতিক মহলে নতুন জল্পনা শুরু হয়েছে। শোভন-বৈশাখীর বিজেপিতে যোগদান কম নাটকীয় ছিল না। যোগ দেওয়ার পরে একাধিকবার বৈশাখী অভিযোগ করেছেন তাঁকে যোগ্য সম্মান দেওয়া হচ্ছে না। এই সময়ের মধ্যে খুব একটা প্রকাশ্যে আসতে দেখা যায়নি দু’জনকে। বিজেপির কোনও কর্মসূচিতেও নয়। ভাইফোঁটার দিন মমতার বাড়ি যাওয়ার পর প্রশ্ন ওঠে তাহলে কি ফের তৃণমূলে ফিরতে চলেছেন শোভন? গেরুয়া শিবিরের তরফে বলা হয় কে ব্যক্তিগতভাবে কার সঙ্গে দেখা করতে যাবেন তাতে দলের কিছু বলার নেই। এ কথা বললেও সামান্য অস্বস্তি শুরু হয়েছিল বিজেপিতে। শোভনের নিরাপত্তা ফিরিয়ে দেওয়ার পর সেই অস্বস্তি যে বাড়ল তা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন শোভনের স্বাস্থ্য নিয়ে চিন্তিত দিদি, ওঁর কথাতেই নিরাপত্তা ফিরেছে, জানালেন বৈশাখী

গত বছর ২২ নভেম্বর মন্ত্রিসভা ও মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দেন শোভন। তারপরেই জেড ক্যাটেগরি থেকে শোভনের নিরাপত্তা ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরি করে দেওয়া হয়। কিন্তু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরে ১৭ অগস্ট শোভনের নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হয়। এই বিষয়ে পুলিশ কমিশনারকে মেল করে শোভন অভিযোগ করেন, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ফলেই কি তাঁর নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হয়েছে। অবশ্য রাজ্য সরকার নিরাপত্তা তুলে নিলেও কেন্দ্র সরকার নিরাপত্তা দেয় শোভনকে। এতদিন সেই নিরাপত্তা নিয়েই চলাফেরা করতেন প্রাক্তন মেয়র। এ বার থেকে ফের রাজ্য সরকারের নিরাপত্তা পাবেন তিনি।

পড়ুন ‘দ্য ওয়াল’ পুজো ম্যাগাজিন ২০১৯–এ প্রকাশিত গল্প

Comments are closed.