সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

শনি ও রবিবার জোরদার বৃষ্টিতে ভিজবে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সপ্তাহ শেষে জোরদার বৃষ্টিতে ভাসবে দক্ষিণবঙ্গ, এ কথা আগেই জানিয়েছিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। শহর কলকাতার পাশাপাশি বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গের অন্যান্য জেলাতেও। সেই পূর্বাভাস মতোই শনিবার সকাল থেকেই মেঘলা রয়েছে আকাশ। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, দুপুরের দিকেই ঝেঁপে বৃষ্টি নামার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে তৈরি হয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত৷ এই ঘূর্ণাবর্ত নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে৷ তার জেরেই শনি এবং রবিবার মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। প্রভাব পড়বে উপকূলের জেলাগুলোতেও, জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। পাশাপাশি প্রতিবেশী রাজ্য ওড়িশাতেও তৈরি হয়েছে নিম্নচাপ। ফলে এই দু’দিন ওড়িশা উপকূলেও বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড়বৃষ্টির প্রভাব পড়বে।

শনিবার সকাল থেকেই আংশিক মেঘলা রয়েছে আকাশ। বেশ কিছু জায়গায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হয়েছে বলে খবর। সকালের দিকে তেমন বৃষ্টি না হলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দুপুরের দিকে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। তবে দক্ষিণবঙ্গে আপাতত প্রবল দুর্যোগের সম্ভাবনা নেই। অতি ভারী বৃষ্টির দেখাও মিলবে না। মাঝারি থেকে ভারী বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। শনিবার শহরের তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরমে হাঁসফাঁস করছে আম জনতা। তাপমাত্রা ৩০-এর কোঠার নীচে থাকলেও রিয়েল ফিল পৌঁছেছে ৩৬ ডিগ্রি-র আশেপাশে।

তবে শুক্রবার কলকাতার তাপমাত্রা ছিল ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রিয়েল ফিল প্রায় ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। গত কয়েকদিন শহরের তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করছিল ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যেই সঙ্গে চলছিল মাঝারি থেকে হাল্কা বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিও। তবে শুক্রবার একলাফে তাপমাত্রা বেড়েছিল প্রায় ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই চড়চড় কর বাড়ছিল পারদ। রোদের তেজ দেখে মনে হচ্ছিল এ যেন জৈষ্ঠ্যের কাঠফাটা দুপুর। তবে রাতের দিকে বৃষ্টি নেমেছিল দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। বেশ খানিকক্ষণ টানা বৃষ্টি হয়েছিল কলকাতা সহ হুগলি, হাওড়া ও অন্যান্য জেলাতেও। বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হলেও সাময়িক স্বস্তি পেয়েছিলেন দক্ষিণবঙ্গবাসী।

Comments are closed.