সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

ভারী নয়, বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিতেই ভিজবে রাজ্য, পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আপাতত ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই রাজ্যে। এখনই বাড়ছে না বৃষ্টির পরিমাণ। বরং উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলাতে হাল্কা থেকে মাঝারি বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিই হবে। পূর্বাভাস আলিপুর আবহাওয়া দফতরের।

আইএমডি-র ডেপুটি ডিরেক্টর সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, বর্তমানে নিম্নচাপ খানিকটা উত্তর-পশ্চিমে সরে গিয়ে অবস্থান করছে। এর নির্দিষ্ট অবস্থান দক্ষিণ-পূর্ব উত্তরপ্রদেশ এবং লাগোয়া বিহার ও ঝাড়খণ্ডে। নিম্নচাপের সঙ্গে রয়েছে ঘূর্ণাবর্তও। এ ছাড়াও উত্তর থেকে দক্ষিণে বিস্তৃত রয়েছে একটি নম্নচাপ অক্ষরেখা। যা ওড়িশা উপকূল ঘেঁষে তামিলনাড়ু পর্যন্ত বিস্তৃত। এই নিম্নচাপ অক্ষরেখা এবং ঘূর্ণাবর্তের জেরে আগামী ২৪ তারিখ পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় হাল্কা থেকে মাঝারি বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে। ভারী বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই।

তবে ২৪ তারিখের পর থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। বজ্রবিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। কিন্তু ২৪ তারিখের আগে প্রবল বর্ষণের কোনও সম্ভাবনা নেই। মঙ্গলবার অবশ্য দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায় দু-এক পশলা বৃষ্টি হয়েছে। তবে সেটা খুবই কম সময় ধরে। এবং পরিমাণ বা বৃষ্টির তেজ সবই ছিল কম। মঙ্গলবার বিকেলেও হাল্কা থেকে মাঝারি বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে। তবে ভারী দুর্যোগের সম্ভাবনা নেই। পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেও আপাতত ভারী বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই। কিন্তু ৪৮ ঘণ্টা পর থেকে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের।

তবে আপাতত রাজ্যে ভারী বৃষ্টি সংক্রান্ত কোনও সতর্কতা জারি হয়নি। গত ১৬ এবং ১৭ অগস্টা নাগাড়ে বর্ষণের ফলে দক্ষিণবঙ্গে ঘাটতি অনেকটাই কমেছে। গোটা রাজ্যে বৃষ্টির ঘাটতি এখন ২১ শতাংশ। যদিও ১৯ শতাংশকে স্বাভাবিক ঘাটতির পরিমাণ মনে করা হয়। উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির কোনও ঘাটতি নেই। তবে দক্ষিণবঙ্গের ঘাটতির পরিমাণ স্বাভাবিকের তুলনায় কিছুটা বেশি, ২৮ শতাংশ। তবে ২৪ অগস্টের পর যে বৃষ্টি হবে তাতে ঘাটতির পরিমাণ আরও কমবে বলেই মত আবহবিদদের। 

Comments are closed.