সোমবার, অক্টোবর ১৪

কিছু কর্মচারী কাজ না করে রাজনীতি করেছেন, শায়েস্তার হুঁশিয়ারি মমতার

  • 399
  •  
  •  
    399
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভোটের সময়ে সরকারি কর্মচারীদের একাংশ কাজ না করে রাজনীতি করেছেন বলে অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার প্রশাসনিক বৈঠক শেষে কাজে গাফিলতি ও দুর্নীতি রুখতে মনিটরিং সেল তৈরির কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

সরকারি প্রকল্পের কাছে গতি আনতে তিনি এ দিন বলেন, “সাধারণ মানুষ সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হলে এ বার সরাসরি টোল ফ্রি নম্বরে (১৮০০৩৪৫৮২৪৪) ফোন করে, এসএমএস (৯০৭৩৩০০৫২৪) করে কিংবা ইমেল পাঠিয়ে অভিযোগ জানাতে পারবেন। সাত দিনের মধ্যে সেই অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে তার সমাধান করবে রাজ্য সরকার।” এর জন্য জেলা শাসক এবং জেলা পুলিশ সুপারের দফতর গুলিকে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই সেলের দায়িত্বে থাকবেন কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী।

নবান্নের বৈঠক শেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, অনেকেই নির্বাচনের সময় সরকারি প্রকল্পগুলিকে গুরুত্ব দেননি। কাজের থেকে বেশি রাজনীতি করেছেন। আগামী দিনে যাতে এই ধরনের কাজ না হয়, সে কারণেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

ভোটের জন্য মানুষের কাজ ছ’মাস ধরে স্তব্ধ হয়েছিল বলে আগেই মন্তব্য করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পর্যবেক্ষকদের মতে, যুবশ্রী, কন্যাশ্রী, বার্ধক্যভাতা, বিধবাভাতার মতো প্রকল্পগুলি দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলায় যে উপভোক্তা শ্রেণি তৈরি করেছেন, গত ছ’মাসে তাঁদের কাছে সরকারি প্রকল্পের সুবিধা ঠিক মতো পৌঁছয়নি। তার প্রভাব পড়েছে ভোটেও। তাঁদের মতে, মুখ্যমন্ত্রী এ দিন সেই প্রশাসনিক দিকটিকেই চিহ্নিত করতে চেয়েছেন। তিনি বলেছেন, “মানুষের প্রকল্প মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পুরসভা ও পঞ্চায়েতগুলিকে আরও সক্রিয় হতে হবে।”

রাজ্য সরকারি কর্মচারী মহলে যে তৃণমূল ক্রমশ ক্ষয়িষ্ণু তা এ বার ভোটে স্পষ্ট হয়ে গেছে। পোস্টাল ব্যালটের ভোটে রাজ্যের ৩৯টি কেন্দ্রে তৃণমূলকে টেক্কা দিয়েছে বিজেপি। এতদিন বামেদের আধিপত্য থাকলেও এ বার গেরুয়া শিবিরের রমরমা। ইতিমধ্যেই দলগত ভাবে সরকারি কর্মচারীদের সংগঠন দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শুভেন্দু অধিকারীকে। এ দিকে সরকারও যে ‘ফাঁকিবাজদের’ শায়েস্তা করতে মরিয়া তাও স্পষ্ট করে দেন মুখ্যমন্ত্রী।

প্রাণীসম্পদ দফতরের এক কর্মচারী মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারির প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “উনি যত এই ধরনের ধমক দিয়ে কথা বলবেন, ওনার সমর্থন তত আলগা হবে। সরকারি কর্মচারীদের প্রাপ্য দিতে পারেন না, শুধু হুঁশিয়ারি!”

Comments are closed.