মঙ্গলবার, মার্চ ২৬

#Breaking- উত্তরবঙ্গে মমতা: দুই প্রার্থী, তিন দিন, চার সভা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বুধবার প্রার্থী পরিচিতির সাংবাদিক বৈঠকেই জানিয়েছিলেন, দোলটা শান্তিতে মিটিয়েই পুরোদমে শুরু করবেন লোকসভা ভোটের প্রচার। তৃণমূল সূত্রের খবর, ২৫ মার্চ থেকে প্রচার শুরু করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২৫, ২৬ এবং ২৭ মার্চ উত্তরবঙ্গের দুই কেন্দ্র আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে চারটি জনসভা করবেন তৃণমূলনেত্রী।

১১ এপ্রিল প্রথম দফায় ভোটগ্রহণ হবে এই দুই কেন্দ্রে। স্বাভাবিক ভাবেই সেখান থেকেই প্রচার শুরু করছেন নেত্রী। এ বার কোচবিহারে প্রার্থী বদল করেছে তৃণমূল। পার্থপ্রতিম রায়ের বদলে সেখানে প্রার্থী করা হয়েছে ফরওয়ার্ড ব্লক থেকে তৃণমূলে যাওয়া প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী পরেশ অধিকারীকে। আলিপুর দুয়ারে যদিও গতবারের জেতা সাংসদ দশরথ তিরকেকেই টিকিট দিয়েছেন দিদি।

এমনিতেই কোচবিহার জেলা গত কয়েক বছরে শাসক দলের ভিতরকার ডামডোলে অশান্ত। বারবার মাদার-যুবর কোন্দল সামনে এসে পড়েছে। বারবার চেষ্টা করেও জেলা নেতাদের পথে আনা যায়নি। কিন্তু উনিশের চ্যালেঞ্জিং ভোটে সে সব করলে যে ফল ভাল হবে না তা জানেন স্বয়ং নেত্রীও। তাই কোচবিহারের প্রার্থী ঘোষণার সময় গত মঙ্গলবার দিদি বলেছিলেন, “পার্থ যদি দলে থাকে তাহলে ওঁকে আমরা অন্য কাজে ব্যবহার করব।” মাঝে জল্পনা তৈরি হয়েছিল পেশায় স্কুল শিক্ষক পার্থপ্রতিম রায়কে নিয়ে। কানাঘুষো শোনা গিয়েছিল, তিনি বিজেপি-তে যেতে পারেন। সেই জল্পনা আরও উস্কে দিয়েছিলেন মুকুল রায়। কিন্তু সব উড়িয়ে পার্থ জানিয়েছেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই আমার আদর্শ।” বৃহস্পতিবার বিদায়ী সাংসদকে দেখা গিয়েছে পরেশ অধিকারীর নামে দেওয়াল লিখতেও।

কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার, এই দুটি আসনকেই এ বার টার্গেট করেছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে প্রথম দফার ভোটের আগে রাজ্যে এসে কর্মীসভা করবেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। মার্চের তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই বাড়বে তাপমাত্রা। পাল্লা দিয়ে বাড়বে বাড়বে ভোটের উত্তাপও।

 

Shares

Comments are closed.