বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২

বাড়ি থেকে মুড়ি-ঘুঘনি নিয়ে যান, জল দিলেও খাবেন না, সতর্ক করলেন মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শেষ দফার ভোটে বিজেপি এভিএম বদলে দিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবং তা রুখতে গ্রামে গ্রামে রাত পাহারা দেওয়ার ডাক দিলেন তৃণমূলনেত্রী। সেই সঙ্গে মহিলাদের জোট বেঁধে বাহিনী তৈরির আহ্বান জানালেন শেষ দিনের প্রচারে।

বুধবার রাতে নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিয়েছে শুক্রবারের বদলে বৃহস্পতিবার রাত দশটার মধ্যে সব দলকে প্রচার শেষ করতে হবে বাংলায়। ফলে মুখ্যমন্ত্রীর সূচিরও রদবদল করতে হয়। এ দিন মথুরাপুর এবং ডায়মন্ড হারবারে জনসভা করেন মমতা। দুটি সভা থেকেই তিনি বলেন, “ওরা হেরে গেছে। তাই শেষ দফায় মেশিন বদলাতে পারে। স্ট্রং রুম পাহারা দিন। যাতে কিচ্ছু না করতে পারে।” এরপরই দলীয় কর্মীদের পরামর্শের সুরে বলেন, “ক্যাম্প করে বসুন। বাড়ি থেকে মুড়ি –ঘুঘনি নিয়ে যান। কেউ কোনও খাবার দিলে বা জল দিলে খাবেন না। ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে দিতে পারে।”

শুধু ছাত্র-যুব নয়। মহিলাদের উদ্দেশে দিদি বলেন, “মা বোনেরা আমার। আপনারাও তৈরি থাকুন। ঘরের কাজ করুন। রান্নাবান্না করুন। আর কিছু হলেই হাতে যা থাকবে তাই নেয়ে ধেয়ে যান।” আরএসএস রাতের অন্ধকারে টাকা ছড়াবে এবং সেই কারণেই একদিন আগে নির্বাচন কমিশন প্রচার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন মমতা। তাঁর কথায়, “নির্বাচন কমিশন বিজেপি-র ভাই।” টাকা ছড়ানো রুখতে তৃণমূলনেত্রী বলেন, “দামাল ছেড়েরা রেডি থাকো। ধরতে পারলেই পুরস্কার। আমি তোমাদের ভবিষ্যৎ গড়ে দেব।”

কেন্দ্রীয়বাহিনীর উদ্দেশেও চড়া সুরে হুঁশিয়ারি দেন মমতা। তাঁর কথায়, “কেন্দ্রীয় বাহিনী তাঁদের কাজ করুক্ম আমার কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু বন্দুক, গুলি চালাবেন না। আপনাদের এক্তিয়ার নেই। গুলি চালালে বাংলার মানুষ বন্দুক কেড়ে নেবে।” এ দিনও তৃণমূল নেত্রী অভিযোগ করেন, “কেন্দ্রীয়বাহিনীর পোশাক পরে আরএসএস-এর ক্যাডারবাহিনী এ সব করছে।” নিজের বাহিনী যাতে ঠিক করে আগামী দু’দিন কাজ করে তার জন্য স্থানীয় নেতাদের ভাল করে দেখার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্য বিজেপি-র এক শীর্ষ নেতা বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে সমস্ত কথা বলছেন তা সরাসরি রাষ্ট্র কাঠামোর বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ। মানুষ এর জবাব দেবেন। পঞ্চায়েতের মতো ভোট হবে না বুঝতে পেরেই দিদির কাঁপুনি শুরু হয়েছে।”

Comments are closed.