রবিবার, অক্টোবর ২০

অন্ত যখন মিলে যায়…বহুদিন পর ছড়ায় ফিরলেন দিদি

  • 426
  •  
  •  
    426
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পঁয়ত্রিশ বছর আগের কথা। তখন বয়সই বা কত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের! তিরিশেরও কম। যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রে সিপিএম প্রার্থী সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কংগ্রেস তাঁকে প্রার্থী করেছে। অনেকেই বলতে শুরু করেছিলেন, অসম লড়াই! কিন্তু ভুল ভেঙে গেছিল অচিরেই। সোনারপুর, বারুইপুরে পাড়া, গলি, খেলার মাঠে তক্তপোষের উপর দাঁড়িয়ে ছোট ছোট সভা করছেন, মমতা… আর সে কী হাততালি তাঁর ছড়া শুনে! মোবাইল, হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুকের জমানা তখন ছিল না। মানুষের মুখে মুখে, আর দেওয়াল লিখনে সে সব ছড়া তখন ভাইরাল।

মমতা থেকে ‘দিদি’ হয়েছেন কালীঘাটবাসিনী। অ্যাদ্দিনে কবিতার বইও লিখে ফেলেছেন বেশ কয়েকখানা। তা নিয়ে তাঁর গর্বও কম না! কিন্তু তাঁর সেই ছড়া যেন হারিয়ে গিয়েছিল..

ফিরিয়ে আনলেন মমতাই।

শুক্রবার বালুরঘাটে সভা ছিল। দেখে বোঝা যাচ্ছিল, মেঘলা দিনে মুডও ভাল ছিল মমতার। লোকও হয়েছিল ভাল। মঞ্চে দাঁড়িয়ে দিদি বললেন, “বলুন তো এটা ইংরেজির কোন বছর? দু হাজার উনিশ, তার মানে বিজেপি ফিনিশ।” ওমনি হাততালি। সেকেন্ড খানেক বিরতি দিয়ে ফের মমতা বললেন, “আচ্ছা, এ বার বলুন বাংলার কোন বছর, চোদ্দ’শ ছাব্বিশ, তার মানে বেয়াল্লিশে বেয়াল্লিশ।” ফের হাততালি। তবে মমতা এক নিঃশ্বাসে বলে গেলেন, “অন্ত যখন মিলে যায়-আর কী কোনও কথা হয়?”
বালুরঘাটে জনসভায় এ ছিল মমতার অন্ত্যমিলের ট্রেলর মাত্র। এর পর ছত্রে ছত্রে বিজেপি-কে রাজনৈতিক খোঁচায় অন্ত মিল ফিরে আসে, মোদীর অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি-কে, কখনও চা-ওয়ালার কেটলি বলেন তিনি, কখনও অমিত শাহ-কে বলেন গব্বর সিংহ। তাঁর কথায়, আগে মায়েরা ছেলে মেয়েদের ঘুম পাড়াত, ছেলে ঘুমোল, পাড়া জুড়লো বর্গী এলো দেশে। এখন বলে, “ছেলে ঘুমোল, পাড়া জুড়লো গব্বর এলো দেশে/ সব অধিকার কেড়ে নিল, বাঁচব আমি কীসে?”

পরে ছন্দ মিলিয়ে বিজেপি-র বিরুদ্ধে স্লোগানও তোলেন মমতা। বলেন, ভেঙে হবে চুরমার/বিজেপি-র সরকার। গব্বরদের সরকার/আর নেই দরকার। “ওড়িশায় জিরো, বাংলায় জিরো, কী করে হবে মোদী হিরো!”

আবার বক্তৃতার এক্কেবারে শেষে গিয়ে মমতা বলেন, “মায়েরা দেবে উলুধ্বনি, ভাইয়েরা দেবে তালি, দিল্লি থেকে বিজেপি হয়ে যাবে খালি।”

Comments are closed.