শুক্রবার, জুন ২১

#Breaking: বিশ্বকাপের ভারতীয় দল ঘোষণা, দলে কার্তিক-বিজয় শঙ্কর, জায়গা হলো না পন্থ-রায়ুডুর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পয়লা বৈশাখেই বিশ্বকাপের জন্য ১৫ জনের ভারতীয় দল ঘোষণা করল বিসিসিআইয়ের নির্বাচক কমিটি। প্রত্যাশা মতোই দলে জায়গা পেলেন বিজয় শঙ্কর ও দীনেশ কার্তিক। অনেক আলোচনার পরেও বিশ্বকাপের দল থেকে বাদ পড়তে হলো ঋষভ পন্থ ও অম্বাতি রায়ুডুকে।

সোমবার মুম্বইয়ে বৈঠকে বসেছিলেন নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি। ছিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও কোচ রবি শাস্ত্রীও। এই বৈঠকেই ১৫ জনের দল গঠন করা হয়। তারপর সাংবাদিক সম্মেলন করে ১৫ জনের নাম ঘোষণা করে দেন নির্বাচক প্রধান।

দলের ১১ জনের নাম প্রত্যাশিত ছিলই। ইংল্যান্ডের বিমান ধরার জন্য যাঁরা নিশ্চিত ছিলেন, তাঁরা হলেন বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, মহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ড্য, কুলদীপ যাদব, যজুবেন্দ্র চাহাল, ভুবনেশ্বর কুমার, মহম্মদ শামি ও জশপ্রীত বুমরাহ। এ ছাড়াও আইপিএলের পারফরম্যান্সে দলে তৃতীয় ওপেনার হিসেবে জায়গা করে নিয়েছিলেন লোকেশ রাহুলও।

বাকি তিনটি জায়গা নিয়ে লড়াই ছিল মূলত পাঁচজনের মধ্যে। তাঁরা হলেন বিজয় শঙ্কর, রবীন্দ্র জাদেজা, দীনেশ কার্তিক, অম্বাতি রায়ুডু ও ঋষভ পন্থ। গত এক বছরে ব্যাট বল হাতে ভালোই পারফর্ম করেছেন শঙ্কর। হার্দিকের পর দ্বিতীয় সিমিং অলরাউন্ডার হিসেবে তাঁকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন নির্বাচকরা। প্রত্যাবর্তনের পর ভালো ফর্মেই আছেন রবীন্দ্র জাদেজাও। বল হাতে ভালো করার পাশাপাশি ব্যাট হাতেও ভারতের হয়ে ও আইপিএলে চেন্নাইয়ের হয়ে ভালো করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। তাই স্পিনার অলরাউন্ডার হিসেবে জায়গা পেয়েছেন তিনি।

বাকি একটা জায়গা, অর্থাৎ দলের চার নম্বর ব্যাটসম্যান কে হবেন, সেটা নিয়েই লড়াই ছিল কার্তিক, রায়ুডু ও পন্থের মধ্যে। তিনজনেই আবার উইকেট কিপিংয়ের কাজটাও করে থাকেন। কিন্তু তাঁদের মধ্যে দক্ষতা অবশ্যই বেশি কার্তিকের। অভিজ্ঞতাও বেশি। আর তাই দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার উপর গুরুত্ব দিয়েই রায়ুডু ও পন্থের আগে দলে জায়গা পেয়েছেন দীনেশ কার্তিক।

তবে ১৫ জনের দল নির্বাচিত হলেও প্রথম এগারোতে কারা থাকবেন, সেটা নিয়েও মোটামুটি একটা সম্ভাব্য ধারণা করা যাচ্ছে।

ভারতের সম্ভাব্য একাদশ: শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা ( সহ-অধিনায়ক ), বিরাট কোহলি ( অধিনায়ক ), লোকেশ রাহুল, কেদার যাদব, মহেন্দ্র সিং ধোনি, হার্দিক পান্ড্য, কুলদীপ যাদব, যজুবেন্দ্র চাহাল/ ভুবনেশ্বর কুমার, মহম্মদ শামি, জশপ্রীত বুমরাহ।  

Comments are closed.