শনিবার, মার্চ ২৩

প্রতারণা মামলায় গ্রেফতার করা যাবে না সৌমিত্র খানকে, নির্দেশ হাইকোর্টের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জেলা আদালতে ধাক্কা খেলেও হাইকোর্টে স্বস্তি পেলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খান। চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা মামলায় বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ সোমবার সৌমিত্রর আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেছেন। ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন স্পষ্ট জানিয়েছে, এক্ষুণি এক্ষুণি গ্রেফতার করা যাবে না তৃণমূল থেকে বিজেপি-তে যোগ দেওয়া এই সাংসদকে। সেই সঙ্গে বাঁকুড়া জেলাতেও সৌমিত্র ঢুকতে পারবেন না।

মাস দেড়েক আগেই সৌমিত্র খান দিল্লিতে বসে বিস্ফোরক অভিযোগ তুলেছিলেন পুলিশের বিরুদ্ধে। তখনও তিনি তৃণমূলে। ফেসবুক লাইভে তরুণ সাংসদের অভিযোগ ছিল, বিষ্ণুপুরের এসডিপিও সুকোমল দাস তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। এমনকী সাংসদের অভিযোগ ছিল, তাঁর আপ্তসহায়ক গোপীকে আটকে রাখা হয়েছে মিথ্যে মামলা দিয়ে। দেখা যায় পরের দিনই গোপীকে আদালতে তুলে দেয় বিষ্ণুপুর পুলিশ। সেই বিকেলেই মুকুল রায়ের হাত ধরে কেন্দ্রীয় বিজেপি দফতরে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দেন সৌমিত্র।

এর মধ্যেই বাঁকুড়ার বড়জোড়া থানায় সৌমিত্রর বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগ করেন প্রশান্ত মণ্ডল নামের এক ব্যক্তি। জানা গিয়েছে এই প্রশান্ত নাকি আবার সৌমিত্রর পিসতুতো ভাই। তিনি লিখিত অভিযোগ করে পুলিশকে জানিয়েছিলেন, এসএসসি তে চাকরি পাইয়ে দেবেন বলে সৌমিত্র তাঁর কাছ থেকে মোটা টাকা নিয়েছিলেন। সেই চাকরিও পাননি এবং সাংসদ টাকা ফেরতও দেননি বলে অভিযোগ করেছিলেন প্রশান্ত। সেই মামলাতেই এ দিন হাইকোর্টে জামিন পেলেন সৌমিত্র।

Shares

Comments are closed.