শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০

তৈরি হচ্ছে নিম্নচাপ, মঙ্গল-বুধবার ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এই মুহূর্তে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকলেও আগামী ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বঙ্গোপাসাগরের উপর নিম্নচাপ তৈরি হবে বলে জানাল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। ফলে ৬ ও ৭ তারিখ, অর্থাৎ আগামী মঙ্গলবার ও বুধবার কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে বলেই জানাল হাওয়া অফিস।

শনিবার আলিপুর আবহাওয়া দফতরের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে যেরকম বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হচ্ছে সে রকমই চলবে। তবে আগামী ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে উত্তর বঙ্গোপাসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হওয়ার পরিবেশ তৈরি হয়েছে। ফলে ৬ ও ৭ তারিখ কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টি হবে। তিনি আরও জানান, এই মুহূর্তে মৌসুমী অক্ষরেখার অবস্থান দিঘা হয়ে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরের মধ্যে। ফলে আগামী ২-৩ দিন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে হালকা ও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে। তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে সর্বনিম্ন ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ঘোরাফেরা করবে। আকাশ মেঘলা থাকায় একটা আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থাকলেও তাপমাত্রা খুব একটা বাড়বে না বলেই জানিয়েছেন তিনি।

সঞ্জীববাবু আরও জানিয়েছেন, উত্তরবঙ্গে বৃষ্টি স্বাভাবিক পরিমাণে হলেও, দক্ষিণবঙ্গে জুন-জুলাই, দু’মাসেই যথেষ্ট পরিমাণ বৃষ্টির ঘাটতি রয়েছে। তবে বর্ষার মরশুমে দ্বিতীয় ভাগে স্বাভাবিক ভাবে বৃষ্টি হবে, তেমনটাই আশা করছে আবহাওয়া দফতর। এমনিতেই দক্ষিণবঙ্গে এ বার বর্ষা এসেছে দেরিতে। ৮ জুনের বদলে ২১ জুন। আর সে ভাবে জোরদার হয়েও বর্ষা প্রবেশ করেনি দক্ষিণবঙ্গে। তবে এখন যে বৃষ্টি হচ্ছে তা মধ্যপ্রদেশের উপর তৈরি হওয়া ঘূর্ণাবর্তের জেরে। এই ঘূর্ণাবর্ত এখন কিছুটা পশ্চিমে সরে গেছে। বঙ্গোপসাগর থেকে হাওয়া সেই ঘূর্ণাবর্তের দিকে যাওয়ায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হচ্ছে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। কোথাও কোথাও জোরে বৃষ্টি হলেও তার সময়সীমা খুবই কম।

তবে এই নিম্নচাপ তৈরি না হওয়ার আগে পর্যন্ত বেশ কিছু জেলায় বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি হতে পারে বটে। তবে তার ফলে ঘাটতির পরিমাণ কমবে না। সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন, ১ জুন থেকে দক্ষিণবঙ্গে সব মিলিয়ে ৪৮ শতাংশেরও বেশি ঘাটতি রয়েছে। ধান চাষের জন্য যে পরিমাণ বৃষ্টির প্রয়োজন তা হয়নি। শুধুমাত্র কলকাতাতেই ঘাটতি রয়েছে ৫৮ শতাংশ। তাই ভরসা এখন নিম্নচাপেই। ৪ তারিখ নিম্নচাপ তৈরি হলে, তারপর থেকে কয়েকদিন ফের স্বস্তির বৃষ্টিতে ভিজবে দক্ষিণবঙ্গ, তেমনটাই আশা আবহবিদদের।

Comments are closed.