মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

রাজীব কুমারের আগাম জামিনের শুনানি আজ, নথি নিয়ে আদালতে পৌঁছল সিবিআই

দ্য ওয়াল ব্যুরো : খোঁজ নেই কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার তথা বর্তমান গোয়েন্দা প্রধান রাজীব কুমারের। গত কয়েকদিন ধরে হন্যে হয়ে তাঁকে খুঁজছে সিবিআই। ইতিমধ্যেই সিবিআইয়ের দাখিল করা পিটিশনের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাতে আলিপুর আদালত বলেছিল, রাজীব কুমারকে ইচ্ছে করলে গ্রেফতার করতে পারে সিবিআই। এর জন্য কোনও পরোয়ানার প্রয়োজন নেই। শুক্রবার সেই আলিপুর আদালতেই আগাম জামিনের আবেদন করেন রাজীব কুমারের আইনজীবীরা। শনিবার বেলা ১২টা থেকে শুনানি শুরু হওয়ার কথা। ইতিমধ্যেই নথি নিয়ে আলিপুর আদালতে পৌঁছে গিয়েছেন সিবিআই আধিকারিকরা।

শনিবার সকালেই রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় নথি নিয়ে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্স থেকে রওনা দেয় সিবিআই-এর একটি দল। সিবিআই সূত্রে খবর, এ দিন আদালতে রাজীব কুমারের আগাম জামিনের বিরোধিতা করবে সিবিআই। তারা জানাবে, ইতিমধ্যেই আদালত রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করতে পারে বলে নির্দেশ দিয়েছে। তাহলে ফের এই আবেদনের কোনও মানে থাকে না। বরং এ দিন আদালতে সিবিআই আধিকারিকরা আবেদন করবেন যাতে রাজীব কুমারকে শিগগির সিবিআই দফতরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

হাইকোর্ট গত শুক্রবার রাজীবের আইনি রক্ষাকবচ তুলে নিয়েছিল। তারপর আদাজল খেয়ে নামে সিবিআই। দু’বার রাজীবকে হাজিরার নোটিস দেয় কেন্দ্রীয় তদন্ত এজেন্সি। কিন্তু যাননি এই আইপিএস অফিসার। এরপর গত সোমবার রাজীব যান বারাসত আদালতে। সেখান থেকে জেলা জজ কোর্ট হয়ে মামলা গড়ায় আলিপুর আদালতে। কিন্তু প্রতিটি আদালতেই ধাক্কা খেতে হয় সিটের প্রধানকে।

এর মধ্যেই বৃহস্পতিবার শহর জুড়ে তল্লাশিতে নামে সিবিআই। রাজ্য পুলিশের ডিজিকে ইমেল করে রাজীব কুমারের ফোন নম্বর জানতে চায় সিবিআই। আলিপুরের আইপিএস মেস, রাজীব কুমারের পার্ক স্ট্রিটের বাড়ি, রুবি মোড়ের ভিভান্তা হোটেলে হানা দেয় সিবিআই-এর দল।

শুক্রবার দুপুরের দিকেই রাজীব কুমারের খোঁজে দক্ষিণ ২৪ পরগনার একটি রিসর্টে গিয়েছিল সিবিআই টিম। সেখানে দেখা হয় আর কুমার বা আর কে কুমার নামে কোনও অতিথি এসেছেন কিনা। তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আমতলার ইবিজা রিসর্টে রাজীবকে খুঁজতে পৌঁছে যায় সিবিআই। শুক্রবার মোট সাতটি জায়গায় প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারের খোঁজে তল্লাশি চালিয়েছে সিবিআই।

এখন দেখার শনিবার আলিপুর আদালতে রাজীব কুমারের আগাম জামিনের শুনানি কোন পথে যায়।

Comments are closed.