শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

তৃণমূলের জেলাপরিষদ সদস্যার স্বামীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ইসলামপুরে, খুনের অভিযোগ পরিবারের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জেলাপরিষদ সদস্যার স্বামী তথা এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতাকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠলো দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুরের। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার সকালে ইসলামপুরের মিলনপল্লিতে বাড়ির সামনে থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় জেলাপরিষদ সদস্যা মামনি পোদ্দারের স্বামী কৃপাসিন্ধু পোদ্দারের ( ৪৯ ) দেহ। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে সেখানে এসে পৌঁছয় পুলিশ। তারা দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, এটা খুন না আত্মহত্যা, তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরেই বোঝা যাবে।

তবে পরিবারের অভিযোগ, পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে কৃপাসিন্ধুকে। তারপর আত্মহত্যার ঘটনা সাজানোর চেষ্টা করা হয়েছে। কারণ, যখন দেহ উদ্ধার হয়, তখন কৃপাসিন্ধুর পা মাটিতে ছিল। তাহলে কীভাবে এটা আত্মহত্যা হয়। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি করেছেন তিনি।

পুলিশ সূত্রে খবর, উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখরের বাসিন্দা কৃপাসিন্ধু ও মামনি। সম্প্রতি ইসলামপুরের মিলনপল্লি এলাকায় একটি বাড়ি বানিয়েছেন তাঁরা। বৃহস্পতিবার রাতে গোয়ালপোখরের নন্দঝাড় গ্রামের বাড়ি থেকে ইসলামপুরে মিলনপল্লিতে নতুন বাড়িতে যান কৃপাসিন্ধু পোদ্দার। শুক্রবার সকালে সেই নতুন বাড়ির সামনেই ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় তৃনমূল নেতার দেহ।

তৃনমূল নেতা কৃপাসিন্ধু পোদ্দারের মৃত্যুর খবর শুনেই ইসলামপুরের মিলনপল্লিতে ছুটে আসেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম রব্বানি। তিনিও অভিযোগ করেন, খুন করা হয়েছে কৃপাসিন্ধুকে। ইসলামপুর থানার পুলিশকে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ও উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার শচীন মক্কার। তিনি বলেন, “দেহ ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে না পাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।”

Comments are closed.