শনিবার, জানুয়ারি ২৫
TheWall
TheWall

Breaking: মালদহের পুলিশ সুপার পদ থেকে অর্ণব ঘোষকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শুক্রবার তৃণমূল প্রার্থীর অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন তিনি। কমিশনে নালিশ জানিয়েছিল কংগ্রেস। তার চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ব্যবস্থা। মালদহের পুলিশ সুপার পদ থেকে অর্ণব ঘোষকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন। তাঁর জায়গায় ওই জেলার নতুন পুলিশ সুপার পদে দায়িত্ব নিচ্ছেন অজয় প্রসাদ। 

মঙ্গলবার ভোট মালদহে। ভোটের তিন দিন আগে এই অপসারণকে তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিকমহল। কমিশনের তরফে অজয় প্রসাদকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, যত দ্রুত সম্ভব তাঁকে গিয়ে দায়িত্ব বুঝে নিতে। এর আগে ভোটের আটচল্লিশ ঘণ্টা আগে কোচবিহারের এসপি অভিষেক গুপ্তকে সরিয়ে দিয়েছিল কমিশন। তাঁর জায়গায় পাঠানো হয়েছিল, ডেপুটেশনে বিহারে পাঠানো আইপিএস অমিত কুমার সিংকে। এ বার মালদহের ক্ষেত্রেও একই পদক্ষেপ নিল কমিশন।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় মালদহে ব্যাপক অস্ত্র মজুত হয়েছিল। প্রাণও গিয়েছিল অনেকের। সেই সময় জেলার পুলিশ সুপারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল রাজনৈতিকমহলে। তার উপর অর্ণবের নাম জড়িয়ে রয়েছে চিটফান্ড কাণ্ডেও। অভিযোগ, যে সময় চিটফান্ড তদন্তের জন্য রাজ্য সরকার স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম গঠন করেছিল, তখন বিধাননগর কমিশনারেটের গোয়েন্দা প্রধান ছিলেন অর্ণব। তাঁর বিরুদ্ধে কলকাঠি নাড়ার অভিযোগ তুলেছিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদ কুণাল ঘোষও।

নির্বাচন ঘোষণার দিনই নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা বলেছিলেন, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে কমিশন সব রকম পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। তারপর থেকে দেখা গিয়েছে, প্রশাসনিক স্তরে একাধিক রদবদল করেছে কমিশন। সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ও বিধাননগরের পুলিশ কমিশনার জ্ঞানবন্ত সিংকে। তা নিয়ে তৃণমূল ব্যাপক ক্ষোভ জানিয়েছিল কমিশনের দফতরে গিয়ে। নির্বাচন কমিশনকে ‘নিকম্মা কমিশন’ বলে তোপ দেগেছিলেন তৃণমূলের মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন। কিন্তু এ দিনের পদক্ষেপে কমিশন আরও একবার বুঝিয়ে দিল, অবাধ ভোট করাতে মরিয়া তারা।

ইতিমধ্যেই কমিশন জানিয়েছে, প্রথম দফার থেকে দ্বিতীয় দফায় কেন্দ্রীয়বাহিনী বেড়েছিল। এ বার তৃতীয় দফায় আরও বাহিনী বাড়ানো হবে। যাতে ১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা যায়, তার চেএহটা চালাচ্ছে তারা। শনিবার মালদহে উপস্থিত রয়েছেন রাজ্যের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে। এ দিন প্রশাসনিক বৈঠকও করেন তিনি। তারপরই অর্ণবকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন।

Share.

Comments are closed.