বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ১৭

মারের ভিডিও ভাইরাল হতেই ‘উধাও’ আলিপুরদুয়ারের ডিএম এবং তাঁর স্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রবিবার রাতে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর, সোমবার সকাল থেকে ‘উধাও’ আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক নিখিল নির্মল এবং তাঁর স্ত্রী নন্দিনী কৃষ্ণণ। এমনিতেই ‘থাপ্পড় কাণ্ডে’ তাঁকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তাই নিজের অফিসে যাননি তিনি। কিন্তু সোমবার সকাল থেকে জেলাশাসকের বাংলোতেও নেই তাঁরা। বাংলোর নিরাপত্তারক্ষীরা বলেন, ‘স্যার, ম্যাডাম কোথায় বলতে পারব না।’ পুলিশ সুপার থেকে ডিভিশনাল কমিশনার, কেউই জানাননি সস্ত্রীক জেলাশাসক গেলেন কোথায়!

রবিবার বেলায় ফালাকাটা থানার ভিতর, পুলিশের সামনেই এক যুবককে নির্মমভাবে পেটাতে দেখা যায় নিখিল নির্মল এবং তাঁর  স্ত্রী নন্দিনীকে। অভিযোগ, বিনোদ কুমার সরকার নামের ওই যুবক, ডিএম-এর স্ত্রীকে অশালীন মন্তব্য করেছিলেন ফেসবুকে। সেই ভিডিও উত্তর বাংলার জেলা থেকে সারা রাজ্যে ছড়াতে বেশি সময় লাগেনি। সোমবার শীতের দুপুরেও ডিএম অফিসের অনেক কর্মীকেই দেখা গিয়েছে আড়াল করে সেই ভিডিও দেখতে। গোটা আলিপুরদুয়ার জেলায় হইহই পড়ে গিয়েছে। কেউ বলছেন, আইন নিজের হাতে নিয়ে মোটেই ঠিক করেননি ডিএম। পুলিশেরও উচিত ছিল তাঁকে বাধা দেওয়া। কেউ আবার বলছেন, অভিযুক্ত যুবক যে ভাষায় একজন মহিলাকে কমেন্ট করেছেন, তাতে এরকমই হওয়া উচিত।

রবিবার রাত থেকেই প্রশাসনে শোরগোল পড়ে যায় সস্ত্রীক আইএএস অফিসারের এই ভিডিও নিয়ে। জানা গিয়েছে, কে এই ভিডিও প্রকাশ্যে আনল তা নিয়ে জেলা প্রশাসনের বড় কর্তারা জেলার সাংবাদিকদেরও একপ্রস্ত জিজ্ঞাসাবাদ সেরে ফেলেছেন। কিন্তু থানার ভিতরে, একজন জেলাশাসক, স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে অভিযুক্তকে পেটাচ্ছেন, এই ঘটনা তো মানুষের সামনে তুলে ধরাই সংবাদমাধ্যমের দায়িত্ব। সাংবাদিকরা সেটাই করেছেন মাত্র।

ওই ভিডিওতে জেলাশাসককে বলতে শোনা গিয়েছে, “আমার জেলায় কেউ আমার উপর কথা বলবে না।” এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর থেকে ডিএম এবং তাঁর স্ত্রীর আরও নানান ঘটনার কথা ঘুরছে লোকের মুখে মুখে। ফালাকাটারই এক প্রবীণ নাগরিকের কথায়, “যা শুরু করেছিলেন জেলাশাসক এবং তাঁর স্ত্রী, এটাই ভবিতব্য ছিল।”

অভিযুক্ত যুবক বিনোদ কুমারকে সোমবার তোলা হয়েছে আদালতে। থানা থেকে আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় অভিযুক্ত যুবক বলেন, “একটি গ্রুপে আমাকে যুক্ত করেছিল। সেখানে একটি কথোপকথনে আমায় প্রথমে গালিগালাজ করা হয়। তারপর আমি করি। আমি যদি দোষী হই, তাহলে আদালতে বিচার হবে। কিন্তু ডিএম বা স্ত্রী গায়ে হাত দেওয়ার কে?”

এ দিন বিচারক, ধৃত বিনোদ সরকারের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন।

‘আজ অনেক কুকুরের পেট ভরার মতো শিকার করেছি’: ফেসবুকে অভিযুক্ত জেলাশাসকের হয়ে গলা ফাটাচ্ছেন তাঁর স্ত্রী

Shares

Comments are closed.