সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

পুলিশের বিরুদ্ধে জাতীয় পতাকা ছেঁড়ার অভিযোগ, জেনে নিন কী কী দাবিতে আন্দোলন পার্শ্ব শিক্ষকদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শনিবার রাতে পুলিশের একাংশের হাতে বেধড়ক মার খেয়েছিলেন কল্যাণী সেন্ট্রাল বাস টার্মিনাসে অবস্থানরত পার্শ্বশিক্ষকরা। কিন্তু শুধু মার নয়, পুলিশের বিরুদ্ধে আরও মারাত্মক অভিযোগ তুললেন আন্দোলনকারী পার্শ্ব শিক্ষকরা। তাঁদের দাবি, আলো নিভিয়ে নির্বিচার লাঠিচার্জের সঙ্গে জাতীয় পতাকাও টান মেরে ছিঁড়ে দিয়েছে পুলিশ।

যদিও ঘটনার পর আধা দিন কেটে গেলেও, নদিয়া জেলা পুলিশ এ নিয়ে মুখ খোলেনি। পরে প্রতিক্রিয়া পেলে এই প্রতিবেদনে আপডেট করা হবে।

পার্শ্ব শিক্ষক ঐক্য মঞ্চের বক্তব্য, তাঁদের দাবি দাওয়া নিয়ে এ বছরের গোড়ার দিকে তাঁরা একটি স্মারকলিপি জমা দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রীর কাছে। তাঁদের দাবি, সেই সময়ে শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, লোকসভা নির্বাচন মিটলে এ নিয়ে কথা বলা হবে। কিন্তু ভোটের পর আর কোনও গা করেনি সরকার। মঞ্চের এক নেতা বলেন, “আমরা দেখা করতে চেয়েছিলাম শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে। কিন্তু বিকাশ ভবন জানিয়ে দেয় এখন সম্ভব নয়। তাই আমরা রাস্তায় নেমেছি।”

কী কী দাবিতে আন্দোলন পার্শ্ব শিক্ষকদের, দেখে নিন এক নজরে-

১. প্রাথমিকের পার্শ্ব শিক্ষকদের বেতন ৮ হাজার টাকা। উচ্চ প্রাথমিকে বেতন ১১ হাজার ৩০৪ টাকা। সম কাজে সম বেতনের কেন্দ্রীয় নিয়ম অনুযায়ী বেতন কাঠামো পুনর্বিন্যাস করতে হবে।

২. মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধী নেত্রী থাকার সময়ে প্রতিশ্রতি দিয়েছিলেন, সরকারে এসেই পার্শ্ব শিক্ষকদের স্থায়ীকরণ হবে। কিন্তু তা প্রতিশ্রুতিই থেকে গিয়েছে। দ্রুত তা কার্যকর করতে হবে।

৩. বাম জমানায় বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি হতো। গত পাঁচ বছর তা একেবারে বন্ধ। অবিলম্বে তা চালু করতে হবে।

৪. ভারতবর্ষের সব রাজ্যে পার্শ্ব শিক্ষকরা সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের হারে মহার্ঘ ভাতা পান। বাংলাতেও তা কার্যকর করতে হবে।

৫. মাতৃত্বকালীন ছুটির ক্ষেত্রে স্থায়ী শিক্ষিকা ও পার্শ্ব শিক্ষিকাদের মধ্যে কোনও বৈষম্য রাখা যাবে না।

এই সমস্ত দাবি নিয়ে যখন জোরদার আন্দোলনে নেমেছেন পার্শ্ব শিক্ষকরা, রাজ্য রাজনীতি যখন এ নিয়ে সরগরম, তখন রবিবার দুপুর পর্যন্ত সরকারের তরফে কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি। শিক্ষা দফতরের তরফে কোনও বক্তব্য জানা গেলে এই প্রতিবেদনে তা আপডেট করা হবে।

Comments are closed.