শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

রেশন কার্ডের জন্য সময় বাড়াল রাজ্য, ভোটার তালিকায় নাম তোলা নিয়েও আমলাদের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রেশন কার্ডে নতুন নাম তোলা, নাম-ঠিকানার সংশোধনের জন্য সময় বাড়াল রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার শিলিগুড়ির প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ৫ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে এই কাজ।

সরকারি আমলাদের মুখ্যমন্ত্রী কড়া নির্দেশ দিয়ে বলেন, যত বেশি সংখ্যক ক্যাম্প করে এই কাজ করতে হবে। সেপ্টেম্বর মাসে একদফায় রেশন কার্ডে নাম তোলা ও সংশোধনের কাজ হয়েছে। কিন্তু জেলায় জেলায় এখনও বহু মানুষ তা করতে পারেননি। সে কারণেই দ্বিতীয় ধাপে এই কর্মসূচি চালাবে রাজ্য।

এ দিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এক জায়গায় চারলক্ষ লোক লাইন দিয়ে দিল, রোদে মারা গেল—এ সব যেন না হয়। ব্যাপারটাকে বিকেন্দ্রীকৃত করে দিন।” প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “এর সঙ্গে এনআরসির কোনও সম্পর্ক নেই। ওটা মাথা থেকে বার করে দিন।”

তিনি স্পষ্ট করে দিয়ে আরও বলেন, “সরকারি সভা থেকে বলছি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে বলছি। এখানে এনআরসির কোনও পরিকল্পনা নেই।’ বোঝাতে চান, কেন্দ্র বললেও বাস্তবায়ন করে রাজ্য সরকার। তাঁর কথায়, “অসমে বিজেপির সরকার রয়েছে। এখানে আমাদের সরকার।” নিশ্চিত করতে চান বাংলায় কোনও ভাবেই তা হবে না।”

খাদ্য দফতরতের তরফে জানানো হয়েছে, রেশন কার্ডের জন্য অনলাইনেও আবেদনপত্র জমা দেওয়া যাবে।। দফতরের পক্ষে জানানো হয়েছে, www. wbpds.gov.in ওয়েবসাইটে গিয়ে ১০ নম্বর ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে। ফর্ম পূরণ করে জমা দেওয়া পর্যন্ত গোটাটাই অনলাইনে অর্থাৎ মোবাইলে বা কম্পিউটারে করা যাবে। অনলাইনে আবেদনের সময়ে পরিচয় পত্র হিসেবে আধার কার্ডের ছবি আপলোড করতে হবে। আবেদন করার ৩০ দিনের মধ্যে ডিজিটাল রেশন কার্ডের হার্ড কপি চলে আসবে। বাতিল হয়ে যাবে পুরনো রেশন কার্ডটি।

এ দিন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “কেউ কেউ আছে কোনও কিছু না দেখেই স্যাটাস্যাট ক্যানসেল করে দেয়। ওটা করলে হবে না। কোনও মানুষকে হয়রান হতে হলে আমি কিন্তু অ্যাকশন নেব।”

ভোটার কার্ডের নাম তোলা নিয়েও সরকারি আমলাদের কড়া বার্তা দেন মমতা। বলেন, “এখানে থাকেন তাঁদের নাম অবশ্যই উঠবে। কিন্তু উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্রে থাকে আর এখানে নাম তুলে দিল, সেটা যেন না হয়। তাহলে ৯ কোটি লোকটা ১২ কোটি হয়ে যাবে। কারও যেন ডবল নাম না থাকে। আপনারা কম্পিউটারে ক্লিক করে সবটা দেখে নেবেন। ” মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, আধার কার্ড, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড—এই রকম একটা ডকুমেন্ট থাকলেই নাম তোলা যাবে।”

পড়ুন দ্য ওয়াল-এর পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.