শুক্রবার, এপ্রিল ২৬

কোথায় তিনি, কোথায় তিনি, অবশেষে এলেন অভিষেক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কে বলে গো এই প্রভাতে নেই তুমি!

রবিবার সন্ধে বেলা লাউডন স্ট্রিটের নগরপালের বাংলো থেকে বেরিয়েই মেট্রো চ্যানেলে ধর্ণায় বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা-সহ লাগোয়া জেলার নেতা কর্মীরা দিদির পাশে দাঁড়াতে ছুটে চলে এসেছিলেন ধর্মতলায়। কিন্তু সে দিন ধর্ণামঞ্চের ধারেকাছেও দেখা যায়নি যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

সোমবার সারা দিন গিয়েছে। ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ আসেননি ধর্মতলায়। কৌতূহল বাড়ছিল। অভিষেক কোথায়? দলীয় কর্মীরা সেই কৌতূহল গোপন করেননি। অবশেষে মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে দেখা গেল ধর্ণামঞ্চে।

দুপুর দুটো নাগাদ মেট্রো চ্যানেলে আসেন অভিষেক। মঞ্চেই ছিলেন দীর্ঘক্ষণ। তবে এ দিন বক্তৃতা দেননি তিনি। রবিবার রাত এবং সোমবার সারাদিন তিনি কেন ছিলেন না সেই ব্যাখ্যা অবশ্য শাসক দলের কোনও নেতাই দিতে পারেননি।

গত দু’বছর ধরে একুশে জুলাইয়ের মেগা সমাবেশের দায়িত্ব সামলান অভিষেকই। দলেও এখন তিনি গুরুত্বপূর্ণ। বেশ কয়েকটি জেলার সাংগঠনিক দায়িত্বও তাঁর কাঁধে। ব্রিগেডের ইউনাইটেড ইন্ডিয়া র‍্যালি সফল করতেও জেলায় জেলায় ছুটে বেরিয়েছিলেন। কিন্তু ধর্মতলাতেও মিনি ইউনাইটেড ইন্ডিয়ার ছবি তুলে আনতে চেয়েছিলেন মমতা। তেজস্বী যাদব, কানিমোঝি, চন্দ্রবাবু নায়ডুদের উপস্থিতি এবং দেশের সমস্ত বিজেপি-বিরোধী নেতার ফোনে উনিশের ব্রিগেডের ছোট সংস্করণও বলেছেন অনেকে।  এ হেন সম্মুখ সমরের কর্মসূচিতে উপরের সারির নেতাকে না দেখতে পেলে কৌতূহল হবে সেটাই স্বাভাবিক। তবে দলীয় কর্মীদের সেই কৌতূহল এ দিন মিটে গিয়েছে। কিন্তু রাজনীতির মন বড়ই সন্দিহান। তাই অনেকেরই কৌতূহল রয়ে গেল রবি সন্ধ্যা থেকে দেড় দিনের অনুপস্থিতি নিয়েই!

Shares

Comments are closed.