রবিবার, অক্টোবর ২০

কুণালের মুখ বন্ধ করতেই তাঁকে গ্রেফতার করেছিলেন রাজীব: আদালতে সিবিআই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এত দিন তিনি অভিযোগ করতেন। মঙ্গল বারের বার বেলায় তাঁর কথাই প্রতিধ্বনিত হল সিবিআইয়ের আইনজীবীর মুখে। আর এজলাসে বসে তা নিজে শুনলেন সারদা মামলায় অভিযুক্ত তথা তৃণমূলের প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদ কুণাল ঘোষ।

এক্তিয়ার নেই বলে স্পেশাল কোর্ট এ দিন রাজীব কুমারের মামলা শুনতে চায়নি। তড়িঘড়ি মামলা যায় বারাসত জেলা জজ কোর্টে। সেখানকার শুনানিতে সিবিআইয়ের আইনজীবী গুচ্ছগুচ্ছ অভিযোগ তোলেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। কেন্দ্রীয় তদন্ত এজেন্সির আইনজীবী সওয়াল করতে গিয়ে বলেন, “সাংসদ কুণাল ঘোষ আওয়াজ তুলেছিলেন স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম বা এসআইটি-র তদন্ত নিয়ে। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ঠিক পথে তদন্ত এগোচ্ছে না। তাই তাঁর মুখ বন্ধ করতেই রাজীব কুমার সিটের প্রধান হিসেবে তাঁকে গ্রেফতার করেছিলেন।”

কুণাল ঘোষ একাধিকবার বলেছেন, রাজীবের টিম হিসেবে তৎকালীন বিধাননগরের গোয়েন্দা প্রধান অর্ণব ঘোষ এবং অন্যান্যরা যে ভাবে তদন্ত প্রক্রিয়া চালাচ্ছিলেন, তাতে আসল ঘটনা ঢাকা দেওয়া হচ্ছিল। বিধাননগর দক্ষিণ থানায় অর্ণব ঘোষদের বিরুদ্ধেই অভিযোগ করতে গিয়েছিলেন কুণাল। সে দিনই তাঁকে গ্রেফতার করে নেওয়া হয়। কুণাল এ-ও বলেন, “যে থানায় আমার বিরুদ্ধে কোনও মামলাই ছিল না, সেই থানার পুলিশই আমায় গ্রেফতার করেছিল।”

এজলাসে বসে সিবিআইয়ের আইনজীবীর মুখে এই কথা শোনার পর কুণাল বলেন, “শুনে ভাল লাগল। এত দিন আমি যেটা বলে আসছিলাম, আজ কোর্টে দাঁড়িয়ে সিবিআইয়ের আইনজীবী সে কথাটাই বললেন।”

কুণাল জেলে থাকাকালীন তাঁকে যখন আদালতে নিয়ে আসা হতো, একেক দিন একেটি বিস্ফোরক অভিযোগ তুলতেন তিনি। ব্যাঙ্কশাল কোর্টের বাইরে দেখা গিয়েছে, কুণালের কথা ঢাকতে প্রিজন ভ্যানের টিন বাজিয়ে ‘হা রে রে রে’ করে উঠত পুলিশ। এ দিন সিবিআই বলল, রাজীব কুমারও কুণালের আওয়াজ ঢাকতে তাঁকে গ্রেফতার করিয়েছিলেন।

Comments are closed.