TheWall

কলেজের দায়িত্ব থেকে ফের ইস্তফা বৈশাখীর, মেল করলেন পার্থকে

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মিল্লি আল আমিন কলেজের টিচার ইনচার্জ পদ থেকে ফের ইস্তফা দিতে চাইলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তিনি ইস্তফাপত্র মেল করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে।

গত অগস্ট মাসে একবার মিল্লি আল আমিন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষার দায়িত্ব ছাড়তে চেয়েছিলেন বৈশাখী। কিন্তু সেবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে ইস্তফাপত্র দিলেও তা গৃহীত হয়নি। তারপর কাজেও যোগ দিয়েছিলেন কলকাতার প্রাক্তন মহানাগরিক শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী।

আরও পড়ুন: শোভনের মোবাইল থেকে মেসেজ রত্নাকে,‘সত্যের জয় হল…মিউচুয়াল ডিভোর্স দাও’, তারপর..

কাজে যোগ দেওয়ার পর অবশ্য বিস্ফোরক অভিযোগ তুলেছিলেন বৈশাখী। তাঁর বক্তব্য ছিল, সাম্প্রদায়িক আক্রমণ নেমে আসছে তাঁর উপর। এ ব্যাপারে কলেজেরই এক অধ্যাপিকাকে কাঠগড়ায় তুলেছিলেন তিনি। ক্ষোভ চাপতে না পেরে গোলপার্কের বাড়িতে যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন করেছিলেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানের এই অধ্যাপিকা। হাউহাউ করে কেঁদে ফেলেছিলেন সেদিন।

গতবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পরে বৈশাখী জানিয়েছিলেন, নিজের পদত্যাগপত্রে তিনি একগুচ্ছ অভিযোগ জানিয়েছিলেন পার্থবাবুকে। ধর্মীয় কারণে তাঁকে হয়রানি করা এবং কলেজের নানা দুর্নীতিরও অভিযোগ তুলেছিলেন বৈশাখী। কিন্তু পরে রাগ গলে জল হয়ে যায় তাঁর। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেও গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়ে যায়। এরপর দিন গিয়েছে আর পুরনো দলের কাছাকাছি আসা শুরু হয় বৈশাখীর।

ভাইফোঁটার দিন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি চলে যান তিনি। দিদিকে চকোলেট দেন শোভন-বান্ধবী। অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন, গেরুয়া শিবিরে বনিবনা না হওয়ার পর ফের তৃণমূলের দিকে ঝুঁকতে চাইছেন শোভন-বৈশাখী। এর মাঝে ভাইফোঁটার দিন শোভনবাবুর ফোন থেকে তাঁর ধর্মপত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে করা এসএমএস ফাঁস হয়ে গিয়েছিল। রত্না ঘনিষ্ঠ মহলে বলেছিলেন, যে ভাষায় তাঁকে আক্রমণ করা হয়েছে এসএমএস-এ তা শোভনবাবুর ভাষা নয়। তাঁর সন্দেহ, শোভনের ফোন থেকে বৈশাখীই তাঁকে অশ্রাব্য টেক্সট করেছিলেন। তারপরও পার্থবাবুর সঙ্গে দেখা করতে বিকাশ ভবনে গিয়েছিলেন বৈশাখী। কিন্তু এদিনের ইস্তফা দেওয়ার পর প্রশ্ন উঠে গেল, তাহলে কি তৃণমূলের সঙ্গে ফের দূরত্ব শুরু হয়ে গেল বৈশাখী-শোভনের? সেইসঙ্গে দেখার, বৈশাখীর ইস্তফাপত্র পার্থবাবু গ্রহণ করেন কিনা।

Share.

Comments are closed.