শুক্রবার, জানুয়ারি ১৮

এ বার ডিসাস্ট্রাস পিএম-এর নামেও ছবি বানাতে হবে, মোদীকে ঠুকলেন মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মুক্তির পরে পরেই ‘দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’-এর প্রদর্শনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জায়গায় কোমর বেঁধে নেমেছে কংগ্রেস। খোদ কলকাতাতেই বন্ধ হয়েছে ছবি প্রদর্শন। সকাল সাড়ে এগারোটায় হিন্দ সিনেমায় ফার্স্ট ডে ফার্স্ট শো শুরু হলেও, ১৫ মিনিট পর স্ক্রিনিং বন্ধ করে দেয় হিন্দ কর্তৃপক্ষ। আর দুপুরে বারাসতের যাত্রা উৎসবের মঞ্চ থেকে এই সিনেমা নিয়ে মোদী এবং বিজেপি-কে উদ্দেশ করে তীব্র আক্রমণ শানালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এ দিন মমতা বলেন, “ভোটের আগে রাজনীতি করার জন্য একটা সিনেমা বানিয়েছে। কী তার নাম! অ্যাক্সিডেন্টাল পিএম। আরে অ্যাক্সিডেন্টাল পিএম তো সবাই। এর মানেটা কী! সেটাই তো বুঝলাম না। আর যদি অ্যাক্সিডেন্টাল পিএম হয়, তাহলে জেনে রাখবেন আগামী দিনে ডিসাস্ট্রাস প্রাইম মিনিস্টার নামেরও একটা ছবি বানাতে হবে।”

ডিসাস্ট্রাস পিএম বলতে যে তৃণমূল নেত্রী নরেন্দ্র মোদীকেই ইঙ্গিত করেছেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। কারণ এর আগে একাধিক রাজনৈতিক কর্মসূচিতে মোদী সরকারের জিএসটি, নোটবন্দি-সহ একাধিক আর্থিক নীতি নিয়ে বলেছিলেন ‘দেশে ডিসাস্টার চালাচ্ছে।’

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-এর মিডিয়া উপদেষ্টা সঞ্জয় বারুর লেখা বই নিয়ে এই ছবি তৈরি হয়েছে। পরিচালনা করেছেন বিজয় গুট্টে। কংগ্রেসের অভিযোগ, লোকসভা নির্বাচনের আগে এই সিনেমা সম্পূর্ণ ভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। এ দিন মমতা বলেন, “আমার সঙ্গে কংগ্রেস দলের অনেক মতপার্থক্য আছে। সে কারণেই আমি কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে এসে তৃণমূল কংগ্রেস তৈরি করেছিলাম। কিন্তু তাই বলে ভোটের আগে রাজনীতি করতে সিনেমা বানাবে, এটা মেনে নেওয়া যায় না।”

ছবিতে দেখানো হয়েছে, ২০০৪ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত মনমোহন সিং দুটি ইউপিএ সরকারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন নাম কা ওয়াস্তে। আসলে তাঁকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ করত গান্ধী পরিবার। সনিয়া, রাহুল এবং প্রিয়ঙ্কাকেও অত্যন্ত কুরুচিকর ভাবে ছবিতে দেখানো হয়েছে বলে অভিযোগ কংগ্রেসের। এ দিন তৃণমূল নেত্রীর এই বক্তব্য জাতীয় রাজনীতির ক্ষেত্রে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষকদের অনেকে।

প্রসঙ্গত, গত বছর যখন পদ্মাবত নিয়ে গোটা দেশ জুড়ে করণি সেনা-সহ একাধিক হিন্দুত্ববাদী শক্তি আন্দোলন চালাচ্ছিল, সেই সময় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করে দিয়েছিলেন, “বাংলায় এসে পদ্মাবতের প্রিমিয়ার করুন। কোনও আঁচ লাগতে দেব না।” এ বার বাংলায় আসার আমন্ত্রণ না জানিয়ে বরং ছবির সমালোচনাই করলেন দিদি।

Shares

Comments are closed.