সোমবার, অক্টোবর ১৪

এটা আমার বাড়ি নয়, এ বার কি মামলা করব: অভিষেক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে একটি প্রাসাদোপম দুধসাদা বাড়ির ছবি। কেউ কেউ সেই বাড়ির ছবি দিয়ে ফেসবুক, টুইটারে লিখেছেন, যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি। তা নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় ফুঁসে উঠলেন ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ।

জনৈক সৌরভ ওই বাড়ির ছবি টুইট করে লেখেন, এটি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি। একই সঙ্গে তিনি ওই টুইটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে মেনশন করে লেখেন, “অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের যোগ্যতা কী? কী তাঁর আয়ের উৎস? যে এমন একটা বাড়ি করলেন! আপনি তদন্ত করুন।” ওই সৌরভের পোস্টের স্ক্রিন শট নিয়ে অভিষেক পাল্টা লেখেন, “এই বাড়ি আমার নয়। কোনও দিন ছিলও না। এ বার কি তাহলে আমি মামলা করব!”

তৃণমূলের অনেকের মতে, বিজেপি ও সিপিএমের আইটি সেল এই ফেক খবর ছড়িয়ে অভিষেককে জনমানসে হেয় করতে চাইছে। তৃণমূলের এক নেতার কথায়, যাঁরা এই ছবি ছড়াচ্ছে, তাঁদের প্রোফাইল ঘাঁটলেই স্পষ্ট হয়ে যাবে যে, তাঁরা সবাই হয় বিজেপি, নয় সিপিএম।

যে বাড়ির ছবি দিয়ে অভিষেকের বাড়ি বলে ছড়ানো হচ্ছে, সেটি আসলে দক্ষিণ দমদম পুরসভার তৃণমূল কাউন্সিলর দেবাশিস বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি। অনেকেই এই বাড়ি দেখে পাঁচতাঁরা হোটেল ভেবে ভুল করেন। সূর্য ডুবলেই এই বাড়ির দেওয়ালে খেলা করে মায়াবি আলো। ঘণ্টায় ঘণ্টায় বদলায় আলোর রং।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি ভবানীপুরে ২৩ পলীর পুজো মণ্ডপের ঠিক উল্টোদিকে। যুব তৃণমূল সভাপতির বাড়িটির নাম ‘শান্তিনিকেতন’। পর্যবেক্ষকদের মতে, অভিষেকের সম্পত্তি, বাড়ি নিয়ে রাজনৈতিক মহলে কম কৌতূহল নেই। দলের লোকেরাও সে ব্যাপারে যথেষ্ট কৌতূহলি। সেই সুযোগেই এমন ‘ফেক’ প্রচার বলে মনে করছেন তাঁরা।”

বিরোধীরা তো বটেই, তৃণমূলেরও অনেকে আড়ালে তাঁর বাড়ি এবং সেই বাড়ির নিরাপত্তাবেষ্টনী নিয়ে নানান কথা বলেন। অনেকে বলেন, অভিষেকের বাড়ির জন্যই ওই এলাকায় এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা। রাস্তা বন্ধ করে রাখা হয়। যদিও দু’দিন আগে এ ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, “ও সব বাজে কথা!”

Comments are closed.