মঙ্গলবার, জুন ২৫

নুসরতের বিরুদ্ধে ‘আপত্তিকর’ পোস্ট করে পাকড়াও বিজেপি নেতা-সহ ২

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে নুসরত জাহানের নাম ঘোষণা হওয়ার পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে ট্রোলিং। ছড়িয়ে পড়েছে একাধিক মিম। এ বার সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তিকর লেখা ও ছবি পোস্টের অভিযোগে গ্রেফতার করা হলো এক বিজেপি নেতাকে। জানা গিয়েছে, ধৃত শুভেন্দু চক্রবর্তী বিজেপির বসিরহাট জেলার আইটি সেলের কনভেনার।

নুসরত জাহানের নামে এই ধরণের মিম পোস্ট করার জন্য শুভেন্দু চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন বাদুড়িয়ার বাসিন্দা বিপ্লব সাহা নামের এক ব্যক্তি। এরপরেই শনিবার গ্রেফতার করা হয় শুভেন্দুকে। এ দিনই তাঁকে তোলা হয় বসিরহাট মহকুমা হাসপাতালে। তাঁর বিরুদ্ধে আইপিসি ৫০৫/২ ও ১২০বি ধারায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

তবে শুভেন্দু চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন বসিরহাটের বিজেপি নেতা মিহির বাগচী। তাঁর অভিযোগ, “উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে শুভেন্দুকে এই মামলায় জড়ানো হয়েছে। এইসব কুরুচিকর পোস্ট তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলেই হচ্ছে। যাঁরা টিকিট পাননি, তাঁরাই এই ঘটনা ঘটাচ্ছেন।”

শুধু শুভেন্দু চক্রবর্তীই নন, গাইঘাটার এক বাসিন্দা তন্ময় বালাকেও সোশ্যাল মিডিয়ায় কুরুচিকর পোস্টের জন্য গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, তন্ময় প্রথমে নুসরত জাহানের নামে একটি কুরুচিকর ছবি পোস্ট করেন। পরে তা মুছেও দেন। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে গাইঘাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন এক স্থানীয় বাসিন্দা। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হয়েছে তাঁকে। শনিবার তাঁকে বনগাঁ আদালতে তোলা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেন। সেখানেই চমক হিসেবে যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রে মিমি চক্রবর্তী ও বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রে নুসরত জাহানের নাম ঘোষণা করা হয়। আর এই দুই নাম ঘোষণা হওয়ার পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে একাধিক মিম। তারমধ্যে কিছু মজার হলেও কিছু মিম ছিল আপত্তিকর ও কুরুচিপূর্ণ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ট্রোলিং-এর প্রশ্নে শুক্রবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “যাঁর যেমন চরিত্র, তাঁকে নিয়ে তো তেমনই আলোচনা হবে।” পরে অবশ্য নিজের বক্তব্য থেকে খানিক সরে দিলীপ বাবু বলেন, “আমি ওঁদের ফিল্মি ক্যারেকটারের কথা বলেছি।” এই ধরণের ট্রোলের বিরুদ্ধে আবার মুখ খুলেছেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, “ভোটে লড়ার অধিকার সবার রয়েছে। তাই বলে এভাবে কাউকে নিয়ে ব্যক্তিগত আক্রমণ করা উচিত নয়।”

আরও পড়ুন

মেডিক্যালে কেমন হাজিরা, দেখতে গেলেন নির্মল মাজিরা

Comments are closed.