রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২

বিরাট-রোহিতের মধ্যে কিছু হয়নি, এটা গুজব, আমার আর কপিলের মধ্যেও রটেছিল: গাভাসকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিশ্বকাপের পর থেকেই ভারতের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মার সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। সেই গুঞ্জন চরমে ওঠে দুই ক্রিকেটার ও তাঁদের স্ত্রীদের ইনস্ট্রাগ্রাম কাণ্ডের পর। অথচ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে কিন্তু মাঠের মধ্যে কিন্তু সেরকম কিছু চোখে পড়েনি। বেশ সাবলীলভাবে কথা বলতে দেখা গিয়েছে দু’জনকে। আর তারপরেই বিরাট ও রোহিতের মধ্যে এক গণ্ডগোলের খবর সম্পূর্ণ গুজব বলেই দাবি করলেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার সুনীল গাভাসকার। তাঁর বক্তব্য, তাঁর ও কপিল দেবের মধ্যেও এই ধরণের গুজব ছড়ানো হয়েছিল। এটা টিমের মধ্যে থেকেই কেউ কেউ করেন বলেও অভিযোগ তুলেছেন গাভাসকার।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে গাভাসকার বলেন, “যেই এই গুজব শুরু করে থাকুন না কেন, তিনি ভারতীয় ক্রিকেটের ভালো চান না। আর এটা সাধারণত দলের মধ্যে থাকা কিছু হতাশ ক্রিকেটার ছড়িয়ে বেড়ান। তাঁদের হিংসা দলের ক্ষতি করে। আর তারপর বোর্ডের মধ্যে থাকা কিছু লোকজন এই গুজবের ফায়দা তোলার চেষ্টা করে। এটা পুরোটাই রাজনীতির খেলা।”

এই প্রসঙ্গে তাঁর সঙ্গে কপিল দেবের গণ্ডগোলের প্রসঙ্গও তুলে আনেন সুনীল। তিনি বলেন, “১৯৮৪-৮৫ সিরিজে ডেভিড গাওয়ারের ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কলকাতা টেস্টে বসিয়ে দেওয়া হয় কপিল দেবকে। তখন আমি অধিনায়ক। মাঠে পোস্টার দেখেছিলাম, ‘নো কপিল নো টেস্ট’। সবাই আমার উপর দায় চাপিয়েছিল। অথচ এ ক্ষেত্রে আমার কোনও হাতই ছিল না।” সুনীল জানান, বছরখানেক পর বোর্ডের সিলেকশন কমিটির সদস্য হনুমন্ত সিং একটা প্রতিবেদনে লেখেন, এই সিদ্ধান্ত কমিটিরই ছিল, এতে সুনীল গাভাসকারের কোনও হাত ছিল না।

গাভাসকারের এই বক্তব্য একদিকে যেমন সমর্থকদের মনে ভারতের অধিনায়ক ও তাঁর ডেপুটির মধ্যে চলা গন্ডগোলের খবরে কিছুটা হলেও প্রলেপের কাজ করল, অন্যদিকে তেমনই তুলে দিল কিছু প্রশ্ন। যদি সত্যিই দলের মধ্যে এমন কেউ থেকে থাকেন, যাঁরা এরকম গুজব ছড়াচ্ছেন, তাহলে সেটা তো দলের জন্য আরও ক্ষতিকর। কে হতে পারেন, যিনি এই কাজ করছেন?

Comments are closed.