সোমবার, অক্টোবর ২১

শাস্ত্রী মাইনে পান ১০ কোটি, পাক কোচ মিসবাহ কত পান বছরে! জানেন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দ্বিতীয়বার কোচের পদে বসার পর এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ রবি শাস্ত্রীর মাইনে। তা এতটায়, যে তার ধারেকাছেও পৌঁছতে পারছেন না বিশ্বের তাবড় তাবড় কোচ। সম্প্রতি পাক দলের কোচ মিকি আর্থারকে সরিয়ে নতুন কোচ করা হয়েছে প্রাক্তন অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হককে। কোচ হিসেবে কত মাইনে পান মিসবাহ? শুনলে অবাক হবেন?

দ্বিতীয়বার কোচ হওয়ার পর রবি শাস্ত্রীর মাইনে বছরে ১০ কোটি টাকা। এই মাইনের কাছাকাছিও পান না ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার কোচরা। আর তাই হয়তো ভারতের কোচ হওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন অনেকেই। কোচের পদের জন্য রীতিমতো ইন্টারভিউ নেওয়া হয়। বিশ্বের আর কোনও ক্রিকেট খেলিয়ে দেশের কোচ নির্বাচনের সময় ইন্টারভিউ বলে কিছু হয় না। তাদের বোর্ড যাঁকে যোগ্য মনে করেন তাঁকেই কোচ করেন।

কিছুদিন আগেই পাকিস্তানের কোচ হয়েছেন মিসবাহ। তাঁর কোচ হওয়ার পর পাক মিডিয়ার একাংশ দাবি করেছিল। কোচ হিসেবে অনেক টাকা নাকি পান তিনি। সম্প্রতি এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ ব্যাপারে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “আমি নিজের মাইনে বাড়ানোর কথা বলিনি। আমি বলেছি, আগের কোচ যত টাকা পেতেন, আমাকেও তত টাকা দিলেই হবে।”

মিসবাহ না বললেও অবশ্য তাঁর মাইনের ব্যাপারে খবর দিয়েছে পাক সংবাদ চ্যানেল জিও টিভি। তাদের মতে বছরে মিসবাহ পান ৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ শাস্ত্রীর মাইনের তিন ভাগের থেকেও কম। এই রকম মাইনেই অবশ্য বিশ্বের বেশিরভাগ ক্রিকেট খেলিয়ে দেশের কোচরাও পান।

তবে এই খবর জানার পরেও সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনা হচ্ছে। কেউ বলছেন, যে দেশের অর্থনীতির হাল এত খারাপ, সেই দেশের ক্রিকেট দলের কোচকে এত টাকা মাইনে দেওয়া হয়। কেউ আবার মজা করে বলছেন, মিসবাহই হয়তো পাকিস্তানে সবথেকে বেশি মাইনে পান। আবার কারও যুক্তি, মিসবাহর উচিত নিজের মাইনের একটা অংশ সরকারকে দেওয়া। তাহলে সরকারের একটু সুবিধে হবে।

 

Comments are closed.