সোমবার, অক্টোবর ২১

বিশাখাপত্তনমে রোহিত-ঝড়ে বেসামাল দক্ষিণ আফ্রিকা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : যেন অনেকগুলো জবাব দেওয়ার ছিল রোহিত শর্মার। নির্বাচকদের, টিম ম্যানেজমেন্টকে, সমালোচকদের, সর্বোপরি নিজেকে। নিজের ভঙ্গিতেই জবাব দিলেন রোহিত। বিশাখাপত্তনমের রাজশেখর রেড্ডি স্টেডিয়ামের বাইরে মারা ছক্কাগুলোর মতোই টেস্ট ক্রিকেটে ধামাকার সঙ্গে নিজের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করলেন রোহিত শর্মা। মিডল অর্ডার থেকে ওপেন করতে নেমে প্রথম ইনিংসেই সেঞ্চুরি হাঁকালেন হিটম্যান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে স্কোয়াডে থাকলেও প্রথম এগারোতে সুযোগ পাননি রোহিত। কিন্তু লোকেশ রাহুলের ফর্ম খারাপ থাকায় তাঁকে বাদ দিয়ে রোহিতকে ওপেনার হিসেবে জায়গা দিয়েছেন নির্বাচকরা। বুধবার বিশাখাপত্তনমে ওপেনার হিসেবে প্রথম খেলতে নেমেছিলেন রোহিত। আর প্রথম ইনিংসেই তিনি বুঝিয়ে দিলেন ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত সঠিক।

দক্ষিণ আফ্রিকার দুই পেস বোলার কাগিসো রাবাদা ও ভার্নন ফিলান্ডার প্রথম থেকেই কঠিন প্রশ্ন করছিলেন। বল সুইং করছিল। সঙ্গে ভালো বাউন্স ছিল। প্রথম কয়েক ওভার ধরে খেলেন রোহিত। অযথা ঝুঁকি নেননি। অফ স্টাম্পের বাইরে ছিলেন সাবলীল। ধীরে ধীরে ক্রিজে জমে যাওয়ার পর নিজের হাত খোলা শুরু করেন তিনি।

স্পিনাররা আক্রমণে আসার পরে দেখা গেল সেই পুরনো রোহিতকে। সেই এগিয়ে এসে ছক্কা হাঁকানো। বোলারকে থিতু হওয়ার সময় দিলেন না। নিজের ১১ নম্বর হাফ সেঞ্চুরি করলেন রোহিত। লাঞ্চ পর্যন্ত তাঁর রান ছিল ৮৪ বলে ৫২।

লাঞ্চের পর এসে যেখানে শেষ করেছিলেন সেখান থেকেই শুরু করলেন। তাঁর সামনে দক্ষিণ আফ্রিকার তিন স্পিনার কেশব মহারাজ, ডেন পিয়েট ও সেনুরান মুত্থুস্বামীকে অসহায় দেখাল। তাঁরা বুঝতেই পারছিলেন না কোথায় বল করবেন। বলে ফ্লাইট দিলে এগিয়ে এসে ছক্কা মারছিলেন। শর্ট বল করলে ব্যাকফুটে গিয়ে কাট-পুল করছিলেন।

মুত্থুস্বামীকে কাট করে ১৫৪ বলে নিজের সেঞ্চুরি করলেন রোহিত। তাঁর শেষ টেস্ট সেঞ্চুরি এসেছিল ২০১৭ সালে নাগপুরে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে। এ দিন ওপেন করতে নেমেই নিজের জাত চেনালেন তিনি।

এই মুহূর্তে ভারতের রান বিনা উইকেটে ১৭৮। ৭৬ রানে ব্যাট করছেন ময়ঙ্ক আগরওয়াল। এখন দেখার শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে থামেন হিটম্যান।

 

 

Comments are closed.