সোমবার, অক্টোবর ২১

রেনবোকে হারাল পিয়ারলেস, লিগের ফয়সালা শেষ ম্যাচেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রেনবোর বিরুদ্ধে সাবধানী ফুটবল খেললেন পিয়ারলেস ফুটবলাররা। দীপেন্দু দুয়ারির করা একমাত্র গোলে রেনবোকে হারাল জহর দাসের দল। এই জয়ের ফলে ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে এক জায়গায় পৌঁছে গেল পিয়ারলেস। অর্থাৎ রবিবার লিগের শেষ দিনই বোঝা যাবে কে হবে এ বারের ঘরোয়া লিগের চ্যাম্পিয়ন।

আগের ম্যাচে না খেললেও এ দিন দলে ফিরে আসেন পিয়ারলেসের সেরা স্ট্রাইকার ক্রোমা। শুরু থেকেই চাপ রেখেছিলেন পিয়ারলেস ফুটবলাররা। তার ফলও মেলে। ১০ মিনিটের মাথায় বাঁ’প্রান্তে বল ধরে টপ বক্স থেকে ডান পায়ের বাঁক খাওয়ানো শটে গোল করে পিয়ারলেসকে এগিয়ে দেন দীপেন্দু দুয়ারি। তার দু’মিনিট পরেই ক্রোমার শট বারে লেগে ফেরে।

মাঝে মধ্যে আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করছিলেন রেনবো ফুটবলাররাও। কিন্তু পঙ্কজ মৌলা, ফুলচাঁদ হেমব্রমদের জমাট ডিফেন্স ভাঙা সম্ভব হয়নি। পিয়ারলেসও কিছু সুযোগ পায়। কাজে লাগাতে পারেননি ক্রোমারা। প্রথমার্ধের শেষ দিকে একের পর এক আক্রমণ তুলে আনতে থাকে রেনবো। সুজয়, অভিজিৎ, ফেলিক্স চিডিরা চাপ বাড়ান। বেশ কিছু ভালো সেভ করেন পিয়ারলেস গোলকিপার অরূপ দেবনাথ।

দ্বিতীয়ার্ধে সাবধানী খেলা শুরু করে পিয়ারলেস। আক্রমণের থেকে ডিফেন্সেই নজর দেয় তারা। ফলে আক্রমণের চাপ বেশি ছিল রেনবোর। কিন্তু গোলের মুখ খুলছিল না। এর মধ্যেই ক্রোমার গোল অফসাইডের জন্য বাতিল হয়। ৬২ মিনিটে ক্রোমার জোরালো শট ফের বারে লেগে ফেরে। নইলে ব্যবধান অনেকটাই বাড়াতে পারত পিয়ারলেস।

শেষ পর্যন্ত ১-০ ফলেই শেষ হয় খেলা। এর ফলে ১০ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে একই জায়গায় পিয়ারলেস ও ইস্টবেঙ্গল। যদিও গোল পার্থক্যে পিয়ারলেস এগিয়ে ( পিয়ারলেসের ১১ ও ইস্টবেঙ্গলের ৭ )। রবিবার জর্জ টেলিগ্রাফের বিরুদ্ধে খেলতে নামবে পিয়ারলেস। একই সময়ে কাস্টমসের বিরুদ্ধে খেলবে ইস্টবেঙ্গল। সেই ম্যাচেই হবে লিগের ফয়সালা।

 

Comments are closed.