মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২

মেরি কমকে পদ্মবিভূষণ, সিন্ধুকে পদ্মভূষণ, বাকি সাত পদ্মেও সুপারিশ মেয়েদের জন্যই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ছ’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন মহিলা বক্সার মেরি কমের নাম এ বার পদ্মবিভূষণ পুরস্কারের জন্য সুপারিশ করল ক্রীড়ামন্ত্রক। পদ্মভূষণের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে সদ্য ভারতের হয়ে প্রথম ব্যাডমিন্টন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়া পিভি সিন্ধুর নাম। এ ছাড়াও পদ্মশ্রী পুরস্কারের জন্য আরও সাত মহিলা ক্রীড়াবীদের নাম সুপারিশ করেছে কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রক।

২০০৬ সালে পদ্মশ্রী ও ২০১৩ সালে পদ্মভূষণ পেয়েছেন মেরি কম। গত বছরই ছ’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন মণিপুরের এই বক্সার। আর তাই এ বার ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান পদ্মবিভূষণের জন্য মেরি কমের নাম সুপারিশ করা হয়েছে। মেরি কম পদ্মবিভূষণ পেলে তিনি হবেন সব মিলিয়ে চতুর্থ ও প্রথম মহিলা ক্রীড়াবীদ যিনি এই পুরস্কার পাবেন। এর আগে ২০০৭ সালে বিশ্বনাথন আনন্দ, ২০০৮ সালে শচীন তেণ্ডুলকর ও ২০০৮ সালেই এডমন্ড হিলারি ( মরণোত্তর ) এই পুরস্কার পান।

২০১৭ সালেও পদ্মভূষণের জন্য সুপারিশ করা হয়েছিল সিন্ধুর নাম। কিন্তু সে বার তিনি এই পুরস্কার পাননি। তার আগে ২০১৫ সালে পদ্মশ্রী পান ভারতীয় ব্যাডমিন্টনের এই মুখ। আগের বার না পেলেও এ বার বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ জেতার জন্য সিন্ধু অনেকটাই এগিয়ে বলে মনে করা হচ্ছে।

মেরি কম ও পিভি সিন্ধু ছাড়া বাকি সাত মহিলা ক্রীড়াবীদ যাঁদের নাম পদ্মশ্রী পুরস্কারের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে, তাঁরা হলেন, কুস্তিগীর বীনেশ ফোগত, টেবিল টেনিস তারকা মনিকা বাত্রা, টি ২০ দলের অধিনায়ক হরমনপ্রীত কৌর, মহিলা হকি দলের অধিনায়ক রানি রামপাল, প্রাক্তন শ্যুটার সুমা শিরুর, এবং দুই পর্বতারোহী তাশি ও নুংশি মালিক।

ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, এই প্রথমবার পদ্ম পুরস্কারের জন্য ন’জনই মহিলা ক্রীড়াবীদের নাম সুপারিশ করা হলো। ভারতে মহিলা ক্রীড়াবীদদের নাম দেশবাসীর সামনে তুলে ধরার জন্য এই নাম সুপারিশ, এমনটাই জানিয়েছে তারা।

Comments are closed.