বিরাটকে টপকালেন রাহুল, কিউয়িদের বিরুদ্ধে নয়া রেকর্ড ভারতীয় ব্যাটসম্যানের

ভারতীয় ক্রিকেটের আঙিনায় একজন ধারাবাহিক ও সফল ক্রিকেটার হিসেবে আত্মপ্রকাশ হয়েছে লোকেশ রাহুলের। প্রথমে টি ২০ সিরিজ, পরে ওয়ান ডে সিরিজে ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলেছেন তিনি। ওপেন বা পাঁচ নম্বর, যেখানেই তাঁকে ব্যাট করতে পাঠানো হয়েছে সেখানেই সফল হয়েছেন রাহুল।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিউজিল্যান্ড সফরে একদিনের সিরিজ ভারত হারলেও একজন ব্যাটসম্যান হিরো হয়ে উঠেছেন। ভারতীয় ক্রিকেটের আঙিনায় একজন ধারাবাহিক ও সফল ক্রিকেটার হিসেবে আত্মপ্রকাশ হয়েছে লোকেশ রাহুলের। প্রথমে টি ২০ সিরিজ, পরে ওয়ান ডে সিরিজে ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলেছেন তিনি। ওপেন বা পাঁচ নম্বর, যেখানেই তাঁকে ব্যাট করতে পাঠানো হয়েছে সেখানেই সফল হয়েছেন রাহুল। আর মঙ্গলবার তৃতীয় ওয়ান ডেতে সেঞ্চুরি করার সঙ্গে সঙ্গেই নয়া রেকর্ড গড়লেন রাহুল। টপকে গেলেন বিরাট কোহলিকে।

এদিন মাউন্ট মৌঙ্গানুইয়ে ১১৩ বলে ১১২ রান করেছেন রাহুল। আর তারসঙ্গে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে তাঁদের মাটিতেই পাঁচ নম্বর বা তার পরে ব্যাট করতে নামা প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরি করলেন রাহুল। এর আগে চার নম্বরের পরে কোনও ব্যাটসম্যান কিউয়িদের বিরুদ্ধে সেদেশে সেঞ্চুরি পাননি। অবশ্য অন্য দেশের বিরুদ্ধে নিউজিল্যান্ডে সেঞ্চুরি রয়েছে সুরেশ রায়নার। ২০১৫ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডে জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ নম্বরের পরে ব্যাট করতে নেমে সেঞ্চুরি করেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনিও।

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি গড়ার সঙ্গেই একদিনের ক্রিকেটে চার নম্বর সেঞ্চুরি হল রাহুলের। মাত্র ৩১ ইনিংসে চারটি সেঞ্চুরি করলেন তিনি। ভাঙলেন বিরাট কোহলির রেকর্ড। চারটি সেঞ্চুরি করতে কোহলি নিয়েছিলেন ৩৬ ইনিংস। তবে এই নিরিখে সবার আগে রয়েছেন শিখর ধাওয়ান। মাত্র ২৪ ইনিংসে চারটি সেঞ্চুরি করেছিলেন গব্বর।

এদিনও নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারতের টপ অর্ডার ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত হাল ধরেন সেই রাহুলই। প্রথমে শ্রেয়স আইয়ার ও তারপর মনীশ পাণ্ডের সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়েন তিনি। এই তিনজন ব্যাটসম্যানের উপর নির্ভর করেই ২৯৬ রান তোলে ভারত।

গত বছর অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকেই দুরন্ত ছন্দে রয়েছেন রাহুল। সেই ছন্দই বজায় রেখেছেন নিউজিল্যান্ডে। সেইসঙ্গে কিপারের ভূমিকা পালন করায় দলে এক গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছেন কর্ণাটকের এই ব্যাটসম্যান। যদিও টেস্ট সিরিজে দলে নেই তিনি। অর্থাৎ ওয়ান ডে সিরিজের পরেই তাঁকে দেশে ফিরতে হবে। তার আগে শেষ ম্যাচে রেকর্ড করে গেলেন তিনি।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.