শুক্রবার, জানুয়ারি ১৮

দুরন্ত ফুটবল খেলেও প্রথমার্ধে ০-১ গোলে পিছিয়ে সুনীলরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : তাইল্যান্ড ম্যাচে যেখানে শেষ করেছিলেন, সেখান থেকেই সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর বিরুদ্ধে শুরু করলেন সুনীলরা। নিজেদের থেকে র‍্যাঙ্কিংয়ে ১৮ ধাপ এগিয়ে থাকা আরবকে শুরু থেকেই চাপে রাখল ‘ব্লু আর্মি।’ সহজ সুযোগ নষ্ট না করলে প্রথম ২৫ মিনিটেই ২-০ গোলে আগিয়ে যেত ভারত। ডিফেন্সের মুহূর্তের ভুলে প্রথমার্ধে ০-১ গোলে পিছিয়ে ভারত।

আগের দিনের প্রথম এগারো এ দিন নামিয়েছিলেন কোচ স্টিভেন কনস্টানটাইন। এ দিন শুরু থেকেই আক্রমণের ঝড় তুলে আনতে থাকে ভারত। দুই প্রান্তে উদান্ত ও হোলিচরণের গতি ব্যবহার করে আক্রমণ তুলে আনছিলেন সুনীলরা। প্রথম ১০ মিনিটের মধ্যেই সুযোগ পেয়ে গিয়েছিলেন তরুণ আশিক কুরিয়েন। কিন্তু তাঁর শট দুরন্ত বাঁচান আরবের গোলকিপার খালিদ ইসাবিলাল।

১৫ মিনিটের পর কিছুটা বল ধরে খেলার রাশ নিজেদের দখলে আনার চেষ্টা করছিলেন মুবারক, হামাদিরা। কিন্তু ভারতীয় খেলোয়াড়দের চাপে স্কোয়্যার পাস আর ব্যাক পাসেই আটকে থাকছিল আরব। ফলে বাধ্য হয়ে দূর থেকেই শট নিচ্ছিলেন আরবের ফুটবলাররা। এতে গুরপ্রীত সিং সান্ধুর কোনও সমস্যা হয়নি।

২৭ মিনিটের মাথায় ডান প্রান্তে বল ধরে অনিরুদ্ধের জন্য বল রাখেন উদান্ত। অনিরুদ্ধের ঠিকানা লেখা ক্রস দুরন্ত হেড করেন সুনীল। কিন্তু সরাসরি তা গোলকিপার খালিদের হাতে গিয়ে পড়ে। ফলে গোল আসেনি।

৩০ মিনিটের পর থেকে খেলায় ফেরে আরব আমিরশাহী। বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করে তারা। কিন্তু ভারতের ব্যাক ফোরের সঙ্গে উদান্ত ও অনিরুদ্ধ যোগ দেওয়ায় ফসল তুলতে পারেনি আরব। কিন্তু ৪২ মিনিটের মাথায় ভেঙে পড়ল ভারতীয় ডিফেন্স। প্রতি আক্রমণ থেকে হামাদি দুই ডিফেন্ডার আনাস ও সন্দেশকে গতিতে পরাস্ত করে বল রাখেন মুবারকের জন্য। গুরপ্রীতকে পরাস্ত করে বল জালে জড়িয়ে দেন মুবারক। সংযুক্ত আরব আমিরশাহী এগিয়ে যায় ১-০ গোলে।

পরের মুহূর্তেই গোল শোধের সুযোগ পায় ভারত। দুই ডিফেন্ডারকে সঙ্গে নিয়ে সুনীলের শট পোস্ট ছুঁয়ে বেরিয়ে যায়। বলা যেতেই পারে ভাগ্য প্রসন্ন না থাকায় প্রথমার্ধে পিছিয়ে ভারত।

Shares

Comments are closed.