সোমবার, অক্টোবর ১৪

পয়লা বৈশাখেই ঘোষণা ভারতের বিশ্বকাপের দল, কারা হতে পারেন সম্ভাব্য ১৫, দেখে নিন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পয়লা বৈশাখেই ঘোষণা করা হবে ভারতের বিশ্বকাপের দল। মুম্বইয়ে পাঁচ সদস্যের জাতীয় নির্বাচক কমিটির বৈঠকের পরেই সাংবাদিক সম্মেলন করে এই ঘোষণা করা হবে। নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি, ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও ভারতের কোচ রবি শাস্ত্রীর বৈঠকেই নির্বাচন করা হবে বিশ্বকাপের দল। কারা জায়গা পাবে এই দলে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে জল্পনা।

গত কয়েকটি সিরিজ ধরে বেশ পরীক্ষা নীরিক্ষা চালাচ্ছে ভারতীয় ম্যানেজমেন্ট। ব্যাটিং-বোলিং সব বিভাগেই পরীক্ষা করা হয়েছে। চেষ্টা করা হয়েছে বিশ্বকাপের বেশ কিছুদিন আগেই একটা সেট দল তৈরি করার। কিন্তু এখনও পর্যন্ত বেশ কয়েকটি জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। সেই জায়গাগুলিই ভরাট করার চেষ্টা করা হবে সোমবারের বৈঠকে।

দেখে নিয়ে যাক, কারা নিশ্চিত ইংল্যান্ডের বিমান ধরার ব্যাপারে।

দুই ওপেনার হিসেবে রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ানের নাম নিশ্চিত। আইপিএলের শুরু দিকে অবশ্য রান পাচ্ছিলেন না দুই ওপেনারই। কিন্তু গত ম্যাচে ৯৯ করেছেন শিখর। অন্যদিকে রোহিত শর্মাও রানের মধ্যে ফিরেছেন। তাই বেশ কিছুটা আশ্বস্ত থাকবেন নির্বাচকরা। তৃতীয় ওপেনার হিসেবে জায়গা পাকা করে নিয়েছেন লোকেশ রাহুল। আইপিএলে দুরন্ত ছন্দে রাহুল। সেঞ্চুরিও এসেছে তাঁর ব্যাট থেকে। বিরাট কোহলিও কয়েকটি ম্যাচে ব্যর্থ হওয়ার পর ছন্দে ফিরেছেন।

মিডল অর্ডারের জন্য কেদার যাদবের নাম নিশ্চিত। উইকেট কিপার মহেন্দ্র সিং ধোনি। অলরাউন্ডার হিসেবে হার্দিক পান্ড্যও নিশ্চিত। দুই স্পিনার হেসেবে কুলদীপ-চাহাল জুটিকেই দেখা যাবে বিশ্বকাপে। তিন পেস বোলারও নিশ্চিত। বুমরাহ ও ভুবনেশ্বর কুমারের সঙ্গে দেখা যাবে মহম্মদ শামিকে। গত কয়েকমাসে নিজের ফিটনেস ও বোলিংয়ে উন্নতি করে এই দলে জায়গা পাকা করে নিয়েছেন শামি।

অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে, ১২ জন খেলোয়াড়ের নাম পাকা এই দলে। বাকি থাকছে তিনটে ক্রিকেটারের জায়গা। তার মধ্যে প্রধান জায়গা চার নম্বর ব্যাটসম্যান। এই স্লটের জন্য লড়াই হচ্ছে অম্বাতি রায়ুডু, দীনেশ কার্তিক ও ঋষভ পন্থের মধ্যে। কার্তিক ও পন্থ অবশ্য দ্বিতীয় উইকেট কিপারেরও দাবিদার। রায়ুডুকে সবথেকে বেশি সুযোগ দেওয়া হয়েছে এই স্লটের জন্য। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ও ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জঘন্য খেলেছেন তিনি। তাই শেষদিকে তাঁকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছিল দল থেকে। অন্যদিকে কার্তিকও শেষ দুটি সিরিজে জায়গা পাননি। ফলে পন্থের সুযোগটাই বেশি। কিন্তু কার্তিকের অভিজ্ঞতা হাতিয়ার হতে পারে তাঁকে নির্বাচনের ক্ষেত্রে।

দুই স্পিনার ছাড়া তৃতীয় স্পিনার নিতে গেলে অবশ্যই জায়গা পাবেন রবীন্দ্র জাদেজা। আর দ্বিতীয় অলরাউন্ডার নিতে গেলে বিজয় শঙ্করের নাম সবার আগে। চতুর্থ পেসারের জন্য ভাবলে তরুণ নবদীপ সাইনি ও দীপক চাহারের নাম ভাবতে পারেন নির্বাচকরা। তবে যেহেতু হার্দিক ও বিজয় শঙ্কর দুজনেই পেস বল করতে পারেন, ফলে চতুর্থ পেসারের দিকে নাও যেতে পারে ম্যানেজমেন্ট।

সম্ভাব্য দল: বিরাট কোহলি ( অধিনায়ক ), রোহিত শর্মা ( সহ-অধিনায়ক ), শিখর ধাওয়ান, মহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ড্য, কুলদীপ যাদব, যজুবেন্দ্র চাহাল, ভুবনেশ্বর কুমার, জশপ্রীত বুমরাহ, মহম্মদ শামি, লোকেশ রাহুল, দীনেশ কার্তিক, বিজয় শঙ্কর, রবীন্দ্র জাদেজা।  

Comments are closed.