রবিবার, নভেম্বর ১৭

বিধ্বস্ত দক্ষিণ আফ্রিকা, সিরিজ হোয়াইটওয়াশ থেকে দু’কদম দূরে কোহলিরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ক্লিনিক্যাল। এ ছাড়া আর কীই বা বলা যায় ভারতীয় বোলারদের পারফরম্যান্সকে। এক দিনে ১৬ উইকেট পড়ল দক্ষিণ আফ্রিকার। দুই ইনিংসেই দাঁড়াতে পারলেন না দু প্লেসিরা। তৃতীয় দিনেই ম্যাচ নিজেদের কব্জায় করে নিল ভারত। টেস্ট সিরিজ হোয়াইটওয়াশ থেকে আর মাত্র দু’কদম দূরে ভারত।

এ দিন খেলা শুরু হওয়ার পরেই মাত্র ১ রানের মাথায় উমেশের স্বপ্নের ডেলিভারিতে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন অধিনায়ক দু প্লেসি। তারপর পার্টনারশিপ গড়েন ডেবিউট্যান্ট জুবেইর হামজা ও টেম্বা বাভুমা। বিশেষ করে তরুণ হামজার ব্যাটিং বেশ ইতিবাচক দেখালো। প্রথম ইনিংসেই হাফ সেঞ্চুরি করলেন তিনি।

৩২ রানের মাথায় নাদিমের বলে বাভুমাকে স্টাম্প আউট করেন ঋদ্ধি। টেস্ট ক্রিকেটে নিজের প্রথম উইকেট নিলেন ঝাড়খণ্ডের এই অভিজ্ঞ বোলার। হামজাকে ৬২ রানের মাথায় বোল্ড করেন জাদেজা। বাকি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে কেবলমাত্র জর্জ লিন্ডা কিছুটা প্রতিরোধ গড়েন। ৩৭ রানের মাথায় তাঁকে আউট করেন উমেশ। শেষ উইকেট নেন নাদিম।

মাত্র ৫৬.২ ওভারে ১৬২ রানে অলআউট হয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। উমেশ ৩টি এবং শামি, জাদেজা ও নাদিম ২টি করে উইকেট নেন।

দক্ষিণ আফ্রিকাকে ফলো অন করানোর পর দ্বিতীয় ইনিংসেও সেই একই ছবি। দ্বিতীয় ওভারেই ডি কককে ৫ রানের মাথায় বোল্ড করেন উমেশ। তারপরের ওভারেই প্রথম ইনিংসে হাফসেঞ্চুরি করা জুবেইর হামজাকে শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফেরান শামি। অধিনায়ক দু প্লেসিও মাত্র ৪ রান করে শামির শিকার হন। সহ-অধিনায়ক বাভুমা খাতা খোলার আগেই শামির বলে আউট হয়ে ফিরে যান। ৩৬ রানে ৫ উইকেট পড়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার। চায়ের বিরতির আগে উমেশের বাউন্সার মাথায় লাগে এলগারের। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান তিনি।

চায়ের বিরতির পর দেখা যায় এলগার নামেননি। নামেন জর্জ লিন্ডা ও ক্লাসেন। ক্লাসেন না পারলেও কিছুটা প্রতিরোধ গড়লেন লিন্ডা ও ড্যান পিট। ২৭ করে লিন্ডা আউট হলে এলগারের জায়গায় কনকাশন সাবস্টিটিউট হিসেবে খেলতে নামেন দি ব্রুইন। দু’জনে মিলেও কিছুক্ষণ প্রতিরোধ করেন। ২৩ করে জাদেজার শিকার হন পিট।

তৃতীয় দিনের খেলা শেষ হওয়া পর্যন্ত ৮ উইকেটে ১৩২ রান দক্ষিণ আফ্রিকার। দি ব্রুইন ৩০ করে অপরাজিত আছেন। এখনও ২০৩ রান পিছিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারতের দরকার আর ২ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে এখনও পর্যন্ত শামি ৩টি ও উমেশ ২টি উইকেট নিয়েছেন। তাঁদের আগুনে বোলিংয়ের সামনে চতুর্থ দিন দক্ষিণ আফ্রিকা কতক্ষণ টিকে থাকে সেটাই দেখার।

পড়ুন, দ্য ওয়ালের পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা….

Comments are closed.