মঙ্গলবার, মার্চ ১৯

কোহলির সেঞ্চুরি, বোলারদের দাপটে রুদ্ধশ্বাস জয় ভারতের

দ্য ওয়াল ব্যুরো:  একের পর এক উইকেট পড়ছে। উল্টোদিকে দাঁড়িয়ে হাত কামড়াচ্ছেন তিনি। সমর্থকরাও তাঁর উপরই ভরসা করে ছিলেন। নিরাশ করেননি তিনি। নিজের ৪০তম সেঞ্চুরি করলেন বিরাট। কিন্তু তারপরেও মনে হচ্ছিল জয় অধরা থেকে যাবে। কঠিন মুহূর্তে জ্বলে উঠলেন ভারতীয় বোলাররা। প্রথমে কুলদীপ, তারপর বুমরাহ, শেষে বিজয় শঙ্কর। অস্ট্রেলিয়ার মুখ থেকে জয় ছিনিয়ে নিয়ে গেল ভারত। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ ৮ রানে জিতে সিরিজে ২-০ এগিয়ে গেল বিরাটবাহিনী।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বিরাট। শুরুতেই শূণ্য রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন বিরাটের ডেপুটি রোহিত শর্মা। শিখর ধাওয়ান ও বিরাট কোহলি ইনিংসের হাল ধরেন। কিন্তু ২১ রানে আউট হয়ে যান গব্বর। প্যাট কামিংসের বলের সামনে সমস্যায় পড়ছিলেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। রায়ুডুও ১৮ রান করে আউট হয়ে যান।

তারপর বিরাটের সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়ার দায়িত্ব নেন বিজয় শঙ্কর। বেশ আগ্রাসী দেখাচ্ছিল বিজয়কে। অন্যদিকে নিজের স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে খেলছিলেন কোহলি। কিন্তু ৪১ বলে ৪৬ রান করে ভুল বোঝাবুঝির শিকার হন বিজয়। তারপরেই জাম্পার ওভারে পরপর দুই বলে আউট হয়ে যান কেদার যাদব ও মহেন্দ্র সিং ধোনি। চাপে পড়ে যায় ভারতীয় ব্যাটিং।

কিন্তু তখনও ক্রিজে ছিলেন বিরাট। জাদেজার সঙ্গে মিলে দলের রান এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন। কঠিন পরিস্থিতিতে নিজের ৪০তম সেঞ্চুরি পূরণ করেন রানমেশিন কোহলি। জাদেজা ২১ রান করে আউট হয়ে যান। শেষদিকে দ্রুত গতিতে রান তুলতে গিয়ে ১১৬ রান করে আউট হয়ে যান বিরাট। বাকিরা কেউ দাঁড়াতে পারেননি। ৪৮.২ ওভারে ২৫০ রানে অলআউট হয়ে যায় ভারত। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্যাট কামিংস ৪ উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকে ধরে খেলা শুরু করেন দুই অজি ওপেনার ফিঞ্চ ও খোয়াজা। প্রথম ১০ ওভারে কোনও উইকেট পড়েনি। বাধ্য হয়েই নিজের তুরুপের তাস কুলদীপ যাদবের হাতে বল তুলে দেন বিরাট। ৩৭ রানের মাথায় ফিঞ্চকে আউট করেন কুলদীপ। পরের ওভারেই ৩৮ রানের মাথায় খোয়াজাকে আউট করেন কেদার যাদব। শন মার্শও বেশি রান করতে পারেননি।

তারপর পুরো দায়িত্ব গিয়ে পড়ে ম্যাক্সওয়েল ও হ্যান্ডসকোম্বের উপর। কিন্তু ম্যাক্সওয়েলকে ৪ রানের মাথাতেই প্যাভিলিয়নে পাঠান কুলদীপ। হ্যান্ডসকোম্ব ও স্টয়নিস পার্টনারশিপ গড়েন। ৪৮ রান করে হ্যান্ডসকোম্ব আউট হয়ে যান। কিন্তু দেখে মনে হচ্ছিল ক্যারি ও স্টয়নিস মিলে খেলা ভারতের হাত থেকে নিয়ে চলে যাচ্ছেন, তখনই ক্যারিকে আউট করেন কুলদীপ। তারপর বল করতে আসেন বুমরাহ। ৪৬ তম ওভারে কুল্টার-নাইল ও প্যাট কামিংসের উইকেট তুলে অস্ট্রেলিয়াকে ধাক্কা দেন বুম বুম বুমরাহ।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১১ রান দরকার ছিল। কোহলি বল তুলে দেন মাত্র ১ ওভার বল করা বিজয় শঙ্করের হাতে। প্রথম বলেই স্টয়নিসকে প্যাভিলিয়নে ফেরান বিজয়। তিন নম্বর বলে জাম্পাকে বোল্ড করে অজি ব্যাটিং শেষ করে দেন ভারতের এই তরুণ অলরাউন্ডার। ৮ রানে ম্যাচ জিতে যায় ভারত। এই জয় ভারতের একদিনের ইতিহাসে ৫০০তম জয়। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি যে ভালো হচ্ছে, তা ম্যাচ শেষে বিরাটের মুখই বলে দিচ্ছিল।

আরও পড়ুন

#Breaking : প্রয়াত মতুয়া মহাসংঘের বড়মা বীণাপাণি দেবী

Shares

Comments are closed.