মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

নিজের নয়, দলের স্বার্থ দেখে খেলছিলাম, সেঞ্চুরি না হওয়ার দুঃখ নেই: রাহানে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শেষ দু’বছর আগে টেস্টে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে সেঞ্চুরি। টেস্টে সহ-অধিনায়ক হলেও ওয়ান ডে ক্রিকেটে দলের নিয়মিত সদস্য নন। বৃহস্পতিবার বহুদিন পরে রান এসেছে অজিঙ্ক্যা রাহানের ব্যাট থেকে। ভারতের ইনিংসকে বিপদ থেকে উদ্ধার করলেও সেঞ্চুরি পাননি। আর এই সেঞ্চুরি না পাওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই সপাটে জবাব দিলেন রাহানে। বললেন, তিনি নিজের স্বার্থ নয়, দলের স্বার্থ দেখে খেলেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ভারতের টপ অর্ডার ব্যর্থ। মাত্র ২৫ রানে ফিরে গিয়েছেন ময়ঙ্ক আগরওয়াল, পূজারা ও বিরাট। তখনই ব্যাট করতে নেমে প্রথমে লোকেশ রাহুল ও তারপর হনুমা বিহারীর সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়েন রাহানে। দলকে কঠিন পরিস্থিতি থেকে বের করলেও সেঞ্চুরি পাননি তিনি। ৮১ রানের মাথায় গ্যাব্রিয়েলের বলে প্লেড অন হয়ে ফিরতে হয় রাহানেকে।

প্রথম দিনের খেলা শেষ হওয়ার পর সাংবাদিক সম্মেলনে রাহানেকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে মুম্বইকরের জবাব, “আমি জানতাম এই প্রশ্নটা করা হবে। যতক্ষণ আমি ক্রিজে ছিলাম, দলের কথা ভাবছিলাম। আমি স্বার্থপর নই। তাই সেঞ্চুরি মিস করা নিয়ে আমার কোনও আক্ষেপ নেই। কারণ আমি জানি, এই উইকেটে ৮১ খুব গুরুত্বপূর্ণ রান। আমরা এখন একটা ভাল জায়গায় আছি।”

তাঁর এ দিনের ইনিংসে তাঁর সঙ্গে লোকেশ রাহুল ও হনুমা বিহারীর অবদানের কথা জানাতেও ভোলেননি ভারতের টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক। তিনি বলেন, “আমি যখন নামি, তখন ২৫ রানে আমাদের তিন উইকেট পড়ে গিয়েছিল। তাই আমাদের পার্টনারশিপের দরকার ছিল। আমার সঙ্গে রাহুল ও বিহারীর পার্টনারশিপ ভালো হয়। ওরা দু’জনও খুব বুদ্ধি করে ক্রিকেট খেলেছে। কন্ডিশন বুঝে খেলেছে। এই উইকেটে কিন্তু স্ট্রোক খেলা ততটাও সহজ নয়।”

রাহানে আরও জানান, বিশ্বকাপের দলে সুযোগ না পেয়ে মাঝের দু’মাস তিনি কাউন্টি ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিলেন। এই কাউন্টি খেলা যে তাঁর খুব উপকার করেছে তাও জানাতে ভোলেননি তিনি। রাহানে বলেন, “মাঝে দু’মাস কাউন্টি খেলা আমাকে খুব সাহায্য করেছে। সেখানে আমি তিন নম্বরে নামতাম। মানে বেশিরভাগ সময়েই আমাকে নতুন বল খেলতে হয়েছে। তাই কিছু জায়গায় আমি কাজ করেছি। এ দিনের ইনিংসে সেটাই দেখা গিয়েছে। আমার আত্মবিশ্বাসও অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে।”

Comments are closed.