সোমবার, ডিসেম্বর ৯
TheWall
TheWall

সৌরভ প্রসঙ্গে বিরাটের পাশে গম্ভীর, কোহলির সমর্থনে মুখ খুললেন গৌতি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ইডেনে দেশের প্রথম গোলাপি টেস্ট জিতে পুরস্কার মঞ্চে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রশংসা করেছিলেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বলেন, বিপক্ষকে জবাব দেওয়ার এই রীতি দাদার ( পড়ুন সৌরভ ) দলই শুরু করেছিল। সেটাকেই এগিয়ে নিয়ে চলেছেন বিরাট বাহিনী। কোহলির এই মন্তব্যকে ভালভাবে নেননি ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক লিটল মাস্টার সুনীল গাভাসকার। তাঁর বক্তব্য সৌরভ বোর্ড প্রেসিডেন্ট বলেই এই মন্তব্য করছেন বিরাট। সেই প্রসঙ্গে বিরাটের পাশে দাঁড়ালেন ভারতের প্রাক্তন ওপেনার গৌতম গম্ভীর। বললেন, ঠিক কথাই বলেছেন বিরাট। সৌরভের অধিনায়কত্বেই বিদেশে অনেক বেশি জিততে শুরু করেছিল ভারত।

বিরাটের মন্তব্যের প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমের সামনে গম্ভীর বলেন, “এটা বিরাটের ব্যক্তিগত মত। তবে এতে কোনও সন্দেহ নেই যে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের অধিনায়কত্বেই ভারতের বাইরে আমরা অনেক বেশি জিততে শুরু করেছিলাম।” গম্ভীর আরও বলেন, “এর আগে সুনীল গাভাসকার কিংবা কপিল দেব অধিনায়ক থাকাকালীন ভারতের মাটিতে অনেক শক্তিশালী দল ছিলাম আমরা। কিন্তু সৌরভের অধিনায়করত্বে আমরা বিদেশের মাটিতেও জয়ের ধারা দেখেছি। আমার মনে হয় বিরাট যে বলেছেন, সৌরভের এই কৃতিত্বকেই আমরা এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই, সেটা হয়তো বিদেশের মাটিতে জয়ের হিসেবে বলেছেন। আমি এই কথার সঙ্গে একমত।”

গত রবিবার ইডেনে টেস্ট জয়ের পর পুরস্কার মঞ্চে সঞ্জয় মঞ্জরেকর বিরাটকে জিজ্ঞাসা করেন, কবে এরকম পেস বোলিং ইউনিট দেখেছে ভারত? আগে বিদেশে গিয়ে ভারতের ব্যাটসম্যানরা বাউন্সারে আহত হতেন। এখন দেশের মাটিতেই বিপক্ষকে বাউন্সারে আহত করছেন ভারতীয় পেসাররা। সেই সময়ের জবাব দিচ্ছেন তাঁরা। এর উত্তরে বিরাট বলেন, “আমরা এখন আর কোনও কিছু মুখ বুজে সহ্য করি না। আমাদের বোলিং আক্রমণ এমনই যা দিয়ে প্রতিপক্ষকে হারাতে পারি আমরা। এখন আমরা সব কিছুর জবাব দিতে শিখেছি। এই ঘটনা শুরু করেছিল দাদার ( পড়ুন সৌরভের ) দল। তাকেই আমরা এগিয়ে নিয়ে চলেছি।”

পুরস্কার অনুষ্ঠান শেষ হয়ে যাওয়ার পর সম্প্রচার চ্যানেলে এই ব্যাপারে সুনীল গাভাসকারের বক্তব্য জানতে চাওয়া হয়। তখন তিনি বলেন, “সৌরভ এখন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট বলেই ওর সম্পর্কে ভাল কথা বলছে বিরাট। কোহলির এই মন্তব্যের পর অনেকেরই মনে হতে পারে ১৯৯৪-৯৫ বা ২০০০ সালেই হয়তো ভারতীয় ক্রিকেট শুরু হয়েছিল। বিরাট ১৯৮৮ সালে জন্মেছে। ফলে ওর পক্ষে হয়তো জানা সম্ভব নয় যে সত্তর-আশির দশকেও ভারতীয় দল টেস্ট ম্যাচ ড্র করেছে কিংবা সিরিজ জিতেছে।” গাভাসকারের এই মন্তব্যই বুঝিয়ে দিয়েছিল বিরাটের কথা ভালভাবে নিতে পারেননি তিনি। কিন্তু এই প্রসঙ্গে দিল্লিওয়ালা গম্ভীরকে পাশে পেলেন বিরাট।

Comments are closed.