সোমবার, আগস্ট ২৬

শুরুতে ভাগ্যের সাথ, এজবাস্টনের পাটা উইকেটে সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ বেয়ারস্ট-রয়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এজবাস্টনের পিচ রিপোর্ট দেওয়ার সময় ধারাভাষ্যকার বলেছিলেন, এই পিচে টসে জিতলে চোখ বন্ধ করে ব্যাট নেওয়া উচিত। তেমনটাই নিলেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক মরগ্যান। তার ফলও মিলল। শুরুতে কিছুটা ভাগ্যের সঙ্গ মিললেও যত সময় গড়ালো পার্টনারশিপ মজবুত হলো। ফের একবার সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ গড়লেন বেয়ারস্ট ও জেসন রয়।

এ দিন শুরু থেকে অনেক স্বচ্ছন্দ লাগছিল জেসন রয়কে। কিন্তু আগের দু’ম্যাচে খারাপ ফর্ম থাকায় বেয়ারস্ট কিছুটা ধীরে খেলছিলেন। শামি ও বুমরাহ ভালোই বল করছিলেন। এই সময় ভাগ্যেরও সঙ্গ পান বেয়ারস্ট। মহম্মদ শামির দুটো বল ব্যাটের ইনসাইড এজে লেগে বাউন্ডারি পার করে।

হাত কিছুটা সেট হয়ে যাওয়ার পর আক্রমণাত্মক খেলা শুরু করেন দুই ব্যাটসম্যানই। বিশেষ করে দুই স্পিনার চাহাল-কুলদীপ ও তৃতীয় সিমার হার্দিক পান্ড্যকে টার্গেট করেন তাঁরা। অবশ্য এর মধ্যেই ফের ভাগ্যের সঙ্গ মেলে জেসন রয়ের। হার্দিকের বল রয়ের গ্লাভসে লেগে ধোনির গ্লাভসে জমা পড়ে। কিন্তু আম্পয়ার আউট দেননি। রিভিউও নেয়নি ভারত। পরে রিপ্লেতে দেখা যায় আউট ছিল।

তারপর থেকে তো রানের গতি পিক আপ গিয়ারে চলে যায়। দুই ব্যাটসম্যানই নিজেদের হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। বেশি আক্রমণাত্মক দেখাচ্ছিল বেয়ারস্টকে। কোনও ভাবেই উইকেটের সুযোগ তৈরি করতে পারছে না ভারত। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৯ ওভারে বিনা উইকেটে ১৪১ রান ইংল্যান্ডের। জেসন রয় ৫৯ ও বেয়ারস্ট ৭৭ করে ব্যাট করছেন। উইকেট না তুলতে পারলে বিশাল রান তাড়া করতে হবে ভারতকে।

Comments are closed.