বান্ধবীর নগ্ন ছবি ফাঁস করার হুমকি, ফের বিতর্কে পাক অলরাউন্ডার

তরুণীর নাম আশরিনা সাফিয়া। তিনি দুবাইয়ে থাকেন। সাফিয়ার দাবি, সেখানেই গত মার্চ মাসে এক বন্ধুর মাধ্যমে তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় পাকিস্তানের ওয়ান ডে ও টি ২০ দলের নিয়মিত সদস্য শাদাব খানের। একটি টুর্নামেন্ট খেলতে সেখানে গিয়েছিলেন শাদাব। ধীরে ধীরে তাঁদের সম্পর্ক ভালবাসায় গড়ায় বলে দাবি করেছেন সাফিয়া।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফের বিতর্কে জড়ালেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার শাদাব খান। এক তরুণীর অভিযোগ, তাঁর নগ্ন ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করে দেওয়ার হমকি দিয়েছেন শাদাব। অভিযোগের পক্ষে বেশ কিছু কথোপকথনের স্ক্রিন শটও শেয়ার করেছেন ওই তরুণী।

তরুণীর নাম আশরিনা সাফিয়া। তিনি দুবাইয়ে থাকেন। সাফিয়ার দাবি, সেখানেই গত মার্চ মাসে এক বন্ধুর মাধ্যমে তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় পাকিস্তানের ওয়ান ডে ও টি ২০ দলের নিয়মিত সদস্য শাদাব খানের। একটি টুর্নামেন্ট খেলতে সেখানে গিয়েছিলেন শাদাব। ধীরে ধীরে তাঁদের সম্পর্ক ভালবাসায় গড়ায় বলে দাবি করেছেন সাফিয়া।

নিজের ইনস্টাগ্রাম পোস্টে সাফিয়া লিখেছেন, ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ চলাকালীন ও একাধিক টুর্নামেন্টে তিনি শাদাবের সঙ্গে গিয়েছেন। সবই ঠিক ছিল। কিন্তু এক পাক সাংবাদিক তাঁদের দুজনের ছবি ছেপে তাঁদের সম্পর্কের কথা প্রকাশ করে দেন। তারপরেই নাকি শাদাব তাঁকে হুমকি দিয়ে বলেন, এই সম্পর্কের কথা যেন বাইরের কেউ না জানে। বাইরে তিনি শাদাবের একজন ফ্যানের পরিচয়েই থাকবেন। আর যদি তিনি একথা না মানেন, তাহলে সাফিয়ার নগ্ন ও ব্যক্তিগত ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস করে দেবেন শাদাব।

এই নিয়ে শাদাবের সঙ্গে তাঁর কথা কাটাকাটি হয় বলেও জানিয়েছেন সাফিয়া। তিনি বলেছেন, অন্য মেয়েদের সতর্ক করে দেওয়ার জন্য এই কথা সবাইকে জানাতে যান তিনি। সাফিয়া লেখেন, “বিষয়টি খুবই ব্যক্তিগত। কিন্তু সত্যিটা সবার সামনে আনতেই হত। এভাবে একজন মহিলাকে ঠকানোর জন্য শাদাবকে শাস্তি পেতেই হবে।” তিনি আরও লিখেছেন, “আমি সত্যিই শাদাবকে খুবই ভালবেসেছিলাম। তাই ও এরকম করবে এটা মানতে খুব খারাপ লাগছে। কিন্তু আমি আইনি পথে যাব।”

এই বিষয়ে শাদাব খানের তরফে অবশ্য কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও বিতর্কে জড়িয়েছিলেন শাদাব। ড্রেসিং রুমের মধ্যে অন্য এক ক্রিকেটারের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করার জন্য তাঁকে সতর্ক করেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.