রবিবার, নভেম্বর ১৭

চ্যাম্পিয়নরা চটজলদি ফুরোয় না, ধোনিকে নিয়ে বলতে গিয়ে নিজের কামব্যাক শোনালেন দাদা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তাঁর কেরিয়ারও আগুনপাখির মতো। এই বিসিসিআই সভাপতি হওয়াটাকেই বা কী বলবেন?

বোর্ড সভাপতি হওয়ার পর প্রথম সাংবাদিক বৈঠকে প্রত্যাশিত ভাবেই তাঁর কাছে প্রশ্ন এসেছিল মহেন্দ্র সিং ধোনিকে নিয়ে। আর স্বভাবসিদ্ধ ঢঙে সেই প্রশ্নকে স্টেপ আউট করে মাঠের বাইরে বার করে দিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এমএসডিকে নিয়ে দাদা বললেন, “চ্যাম্পিয়নরা চটজলদি ফুরিয়ে যায় না।”

এ দিন সৌরভ বোর্ড সভাপতির দায়িত্ব নেন। তাঁর সঙ্গেই বোর্ডের সচিব পদে দায়িত্ব নেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ছেলে জয় শাহ এবং কোষাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব নেন প্রাক্তন বোর্ড সভাপতি অনুরাগ ঠাকুরের ভাই অরুণ ধুমাল। সৌরভকে এ দিন জিজ্ঞেস করা হয় হয় ধোনির ভবিষ্যৎ কী? জবাবে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বলেন, “আমি জানি না ওঁর মনে কী আছে। তবে চ্যাম্পিয়নরা অত তাড়াতাড়ি ফুরোয় না। ওঁর অবদান ভারতীয় ক্রিকেট মনে রাখবে।”

এই জবাবের রেশ ধরেই নিজের প্রসঙ্গ টানেন বেহালার বীরেন রায় রোডের বাসিন্দা। বোর্ড সভাপতির হট সিটে বসে মহারাজ বলেন, “আমি যখন বাদ পড়েছিলাম, তখন অনেকে ভেবেছিলেন শেষ হয়ে গিয়েছে। তারপর ফিরে এসেছিলাম। সেটা সবাই জানেন।”

তিনি যখন ভারতীয় ক্রিকেটের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব নিয়েছিলেন, তখন ভারতীয় ক্রিকেট ছন্নছাড়া। ম্যাচ ফিক্সিং, গড়াপেটার অভিযোগে দীর্ণ। সেই সময়ে একা দায়িত্ব নিয়ে টিম ইন্ডিয়ার স্পিরিট ফিরিয়েছিলেন সৌরভ। এ দিন সাংবাদিক বৈঠকেও স্পষ্ট করে দিয়ে সৌরভ বলেছেন, “ক্যাপ্টেনের মেজাজেই বোর্ড চালাব।”

গত এক বছর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অভ্যন্তরীণ কোন্দল বারবার সামনে এসেছে। এ দিন সৌরভ কার্যত হুঁশিয়ারির সুরেই বলেছেন, “কোনও দুর্নীতি, অস্বচ্ছতা বরদাস্ত করা হবে না।” এর সঙ্গেই দাদার তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য, “আমি যতদিন আছি, ততদিন সবাই প্রাপ্য সম্মান পাবেন।”

ভারতীয় ক্রিকেটে ধোনির ভবিষ্যৎ এখন কোটি টাকার প্রশ্ন। গতকালই রাঁচি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইট ওয়াশ করার পর ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে সাংবাদিক সম্মেলনে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, ধোনির ব্যাপারে সৌরভের সঙ্গে কোনও কথা হয়েছে না কি? ধোনির শহরে বসে একটুও বিতর্ক তৈরির সুযোগ দেননি বিরাট। হাসতে হাসতে বলেছিলেন, “কোনও কথাই হয়নি। হলে নিশ্চয়ই বলব।” বৃহস্পতিবার দুপুরে মুম্বইয়ে বিসিসিআইয়ের সদর দফতরে বিরাটের সঙ্গে বৈঠক করবেন সৌরভ। হতে পারে কালই ধোনির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেবে বোর্ড। অনেকে আবার মনে করছেন, বিরাটের সঙ্গে কথা বলার পর হয়তো ধোনির সঙ্গেও কথা বলবেন দাদা। বোঝাতে চাইবেন, তাঁর আমলে গণতন্ত্র থাকবে বোর্ডে। কোনও সিদ্ধান্ত পছন্দ-অপছন্দের ভিত্তিতে হবে না।

Comments are closed.