বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

খাটালের মতো মাঠে লাল-হলুদের বর্ণপরিচয় লিখলেন বিদ্যাসাগর, কোলাডো

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিপক্ষের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর গত প্রায় এক দশকের মিডফিল্ড জেনারেল মেহেতাব হোসেন। প্রতিপক্ষের মাঝ মাঠে গর দেড় মরসুমের অন্যতম ভরসা মহমুদ আল আমনা। আর প্রবল বৃষ্টিতে অন্যতম প্রতিপক্ষ হয়ে উঠেছিল খাটালের মতো মাঠ। তবু খেলার শেষে শেষ হাসি হাসল ইস্টবেঙ্গল। সাদার্ন সমিতিকে হারাল ২-১ গোলে। গোল করলেন বিদ্যাসাগর সিং এবং হাইমে স্যান্টোস কোলাডো। সাদার্নের হয়ে ব্যবধান কমালেন অর্জুন টুডু।

খেলার আগে প্রবল বৃষ্টি শুরু হয় এ দিন। নির্ধারিত সময়ের প্রায় আধঘণ্টা দেরিতে শুরু হয় খেলা। কিন্তু মিনিট কুড়ির মধ্যেই মাঠের দৈনদশা বেরিয়ে পরে। দু’দলই বর্ষার মাঠকে ব্যবহার করতে শুরু করে। প্রাক্তন দলের বিরুদ্ধে এ দিন অসামান্য ফুটবল খেলেন আমনা। তিনিই এ দিনের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন।

৩১ মিনিটে ডানদিক থেকে আসা সেন্টারে কোলাডোর ফ্লিক থেকে হেডারে ইস্টবেঙ্গলকে এগিয়ে দেন বিদ্যাসাগর। এরপর সাদার্নও আক্রমণ শানাতে থাকে লাল-হলুদ বক্সে। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল রক্ষণে এ দিন অসাধারণ খেললেন ঘরোয়া লিগে প্রথম নানা বোরহা গোমেজ।

এক গোলে এগিয়ে থেকে লকার রুমে যায় আলেজান্দ্রো মেনেন্ডেজের দল। ৬১ মিনিটে ডিডিকার কর্ণার থেকে দুরন্ত হেডে গোল করে ২-০ করেন কোলাডো। এ দিন সাদার্নের বাঁদিকে নজর কাড়েন অমরেন্দ্র চক্রবর্তী। নজর কাড়েন পরিবর্ত হিসেবে নামা ইস্টবেঙ্গলের স্প্যানিশ খেলোয়াড় জুয়ান মেরা গঞ্জালেসও।

Comments are closed.