শুক্রবার, নভেম্বর ১৫

আইসিসি-র আজব নিয়মে ভারতের বিরুদ্ধে ব্যাট করবেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১২ ক্রিকেটার

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ‘কনকাশন সাবস্টিটিউট’। আইসিসির এই নতুন নিয়মের খেসারত দিতে হচ্ছে ভারতকে। সাবাইনা পার্কে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যাট করবেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১২ জন ব্যাটসম্যান। অর্থাৎ ম্যাচ জিততে অতিরিক্ত একজনকে আউট করতে হবে ভারতীয় বোলারদের।

আইসিসি নতুন নয়ম করেছে এই কনকাশন সাবস্টিটিউট। অর্থাৎ কোনও ব্যাটসম্যানের যদি মাথায় বল লাগে, আর সেই চোট যদি গুরুতর হয়, তাহলে ম্যাচ চলাকালীনই তাঁর বদলি করা যেতে পারে। অর্থাৎ তাঁর জায়গায় নতুন একজন ব্যাটসম্যান খেলতে পারবেন। মাথায় বল লেগে অজি ক্রিকেটার ফিলিপ হিউজের মৃত্যুর পর থেকে আরও সতর্ক হয়েছে আইসিসি। মাথায় চোটের ক্ষেত্রে কোনও রকমের ঝুঁকি নিতে চাইছে না তারা।

চলতি অ্যাসেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেই এই কনকাশন সাবস্টিটিউট প্রথম দেখা যায়। ইংল্যান্ডের বোলার জোফ্রা আর্চারের নিখুঁত বাউন্সার গিয়ে লাগে অজি ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথের মাথায়। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে পড়ে যান তিনি। রিটায়ার্ড হার্ট হওয়ার পর অবশ্য পরে এসে ব্যাটও করেন স্মিথ। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে আর নামতে পারেননি স্মিথ। তাঁর জায়গায় লাবুশানেকে বদলি হিসেবে খেলায় অস্ট্রেলিয়া।

সাবাইনা পার্কে ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচেও দেখা গেল সেই দৃশ্য। টেস্টের তৃতীয় দিনে দ্বিতীয় ইনিংস চলাকালীন বুমরাহর বলে মাথায় লাগে ড্যারেন ব্রাভোর। তাৎক্ষণিক চিকিৎসা নিয়ে ফের খেলেন তিনি। চতুর্থ দিন ফের খেলতে নামেন ব্রাভো। কিন্তু ঘণ্টাখানেক খেলার পর হঠাৎ করেই মাঠের বাইরে চলে যান তিনি। তারপরে জানা যায়, তিনি আর নামতে পারবেন না। তাঁর জায়গায় বদলি হিসেবে নামেন ব্ল্যাকউড। আর এখানেই উঠেছে প্রশ্ন।

ব্রাভো যখন খেলা ছাড়েন তখন তাঁর রান ছিল ২৩। তারপরে যখন ব্ল্যাকউড নামেন, তিনিও ৩৮ রানের ইনিংস খেলেন। অর্থাৎ দু’জনে মিলে ৬১ রান করেন দলের জন্য। কিন্তু তাঁদের এই যৌথ রান একজনের রান হিসেবেই হিসেব করা হবে। কারণ দলের বাকি ১০ জন ব্যাট করবেন। তাহলে সব মিলিয়ে ১২ জন ব্যাট করছেন।

কিন্তু এতে তো অন্য টিমের প্রতি অবিচার করা হচ্ছে।

আর এই বিষয়েই মুখ খুলেছেন অনেক প্রাক্তন ক্রিকেটার। তাঁদের বক্তব্য, মাথায় লাগলে ঝুঁকি না নেওয়ার যে সিদ্ধান্ত আইসিসি নিয়েছে, তা ঠিক। কিন্তু এ ক্ষেত্রে একটা উইকেটের জন্য দু’জন খেলছেন। যাঁর লেগেছে, তিনি ফের নামলে হয়তো পরের বলেই আউট হয়ে যেতেন। কিন্তু বদলি হিসেবে যিনি নামছেন, তিনি তো সেঞ্চুরিও মারতে পারেন। কারণ তিনি একদম তরতাজা হিসেবে নামছেন। তাহলে ন্যায় হচ্ছে কোথায়?

অবশ্য এইজন্য আইসিসির কাছে একটা প্রস্তাবও দিয়েছেন তাঁরা। তাঁদের বক্তব্য, আইসিসির উচিত এমন একটা নয়ম বানানো, যাতে এক ইনিংসে একটা উইকেটের বিনিময়ে এক জনই ব্যাট করবেন। দরকার পড়লে পরবর্তী ইনিংসে বদলি ব্যাটসম্যান নামতে পারেন। কিন্তু এক ইনিংসে নয়।

Comments are closed.