বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

রাজনৈতিক অশান্তির জের, পিছল বার্সা-রিয়েল এল ক্লাসিকো

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মরসুমের শুরুতে পিছিয়ে পড়ে ধীরে ধীরে লিগে ফিরেছে দু’দলই। এই মুহূর্তে লা লিগায় এক নম্বরে রিয়েল মাদ্রিদ। দু’পয়েন্ট কম পেয়ে দুয়ে বার্সেলোনা। এই অবস্থায় সামনের সপ্তাহে মরসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোতে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল দু’দলের। কিন্তু বার্সেলোনাতে রাজনৈতিক অশান্তির জেরে পিছিয়ে দিতে হল সেই ম্যাচ।

২৬ অক্টোবর ক্যাম্প নৌ-তে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল বার্সা-রিয়েলের। কিন্তু সে দিনই বার্সেলোনা জুড়ে একটি রাজনৈতিক র‍্যালি বের হওয়ার কথা আছে। তাই বার্সার পক্ষে লা লিগার কাছে এই ম্যাচ পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানানো হয়। ফুটবলারদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে পিছিয়েও দেওয়া হয়েছে ম্যাচ।

লা লিগার তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ২৬ অক্টোবর ম্যাচ হচ্ছে না। তার পরিবর্তে ম্যাচ কবে হবে তা আগামী সোমবার কমিটির বৈঠকে ঠিক হবে। একটা সূত্রের খবর, ১৮ ডিসেম্বর হয়তো হতে পারে এই ম্যাচ। তবে সে দিন বুধবার। তাই সপ্তাহের মাঝে এল ক্লাসিকো হোক এটা চাইছেন না লা লিগা সভাপতি। সেই পরিস্থিতিতে ম্যাচের দিন পরিবর্তন হতে পারে।

বার্সেলোনা স্পেনের অধীনে থাকলেও সেখানকার বাসিন্দারা মনে করেন তাঁরা স্পেনের অংশ নন। তাঁরা নিজেদের কাতালান হিসেবেই পরিচয় দেন। বহুদিন ধরেই তাঁরা স্পেনের অধীন থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আন্দোলন করছেন। গত কয়েক বছরে এই আন্দোলন আরও বেড়েছে। গণভোটে ঠিক হয়েছে বার্সেলোনা স্পেনের অধীনে থাকতে চাইছে না। এর প্রভাব পড়েছে ফুটবল মাঠেও। বার্সেলোনা ও স্পেনের অধিনায়ক জেরার্ড পিকে রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে মন্তব্য করেছিলেন তিনি কাতালানদের এই প্রতিবাদকে সমর্থন করেন। তার জন্য যদি তাঁকে স্পেনের জাতীয় দল থেকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয় তাতেও তাঁর কোনও অসুবিধা নেই। লা লিগা থেকে বার্সোলোনা বেরিয়ে যেতে পারে এমন জল্পনাও শুরু হয়েছিল। স্পেনের ফুটবলারদের মধ্যে তৈরি হওয়া এই দূরত্ব সাম্প্রতিক কালে স্পেনের ফুটবল সাম্রাজ্যের পতনের কারণ বলেই মনে করছেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।

গত কয়েকদিন ধরে লাগাতার আন্দোলন হচ্ছে বার্সেলোনাতে। পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে ম্যাচ হলে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলেই আশঙ্কা করছে বার্সা কর্তৃপক্ষ ও লা লিগা। তাই ম্যাচ পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

পড়ুন দ্য ওয়াল-এর পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.