শুক্রবার, নভেম্বর ১৫

ইপিএলে বড় দুর্ঘটনা, সংশয়ে আন্দ্রে গোমেসের কেরিয়ার, কান্নায় ভেঙে পড়লেন সন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফুটবল মাঠে কোনও খেলোয়াড় চোট পেলে, উজ্জীবিত করতে কোচেরা বলে থাকেন, ‘ডোন্ট ওরি। ফুটবল ইজ বডি কনট্যাক্ট গেম।’ কিন্তু রবিবার রাতে বড় দুর্ঘটনা ঘটে গেল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে টটেনহ্যাম বনাম এভারটন ম্যাচে। কোরিয়ান ফুটবলার হিউন মিন সনের সঙ্গে কড়া ট্যাকলে সংশয়ে পর্তুগিজ তারকা আন্দ্রে গোমেসের ফুটবল কেরিয়ার।

সনের গোলে টটেনহ্যাম তখন এগিয়ে ছিল। সমতা ফেরানোর মরিয়া লড়াই চালাচ্ছিল এভারটন। মাঝ মাঠে বল ধরেন এভারটনের নির্ভরযোগ্য মিডিও গোমেস। বল কাড়তে স্লাইড ট্যাকল করতে ঘাসে শরীরে ছুঁড়ে দেন সন। সজোরে আঘাত লাগে গোমেসের পায়ে।

কাছাকাছি থাকা ফুটবলাররা তখনই বুঝেছিলেন বড় বিপদ হয়ে গিয়েছে। সনও তখন কী করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না। জার্সি দিয়ে লজ্জায় মুখ ঢাকার চেষ্টা! এরপর বেশ খানিকক্ষণ পর স্ট্রেচার ঢোকে মাঠে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় গোমেসকে। প্রতিপক্ষ ফুটবলারের এত বড় ক্ষতি হল তাঁর ট্যাকলে- মাঠের মাঝে ঝরঝর করে কাঁদতে থাকেন কোরিয়ান গোল মেশিন। তাঁকে লালকার্ডও দেখতে হয়েছে।

ফুটবল মহলের অনেকেই বলছেন, সাম্প্রতিক অতীতে এত বড় চোট হয়নি। শেষ দেখা গিয়েছিল ২০১৪-র বিশ্বকাপে ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে খেলতে নেমে ব্রাজিলের নেমার জুনিয়রের চোট। জুনিগারের সঙ্গে এয়ার ক্ল্যাশে মেরুদণ্ডে আঘাত লেগেছিল নেমারের। বেশ কয়েক মাস মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছিল ব্রাজিলীয় তারকাকে।

এভারটনের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গুরুতর চোট লেগেছে গোমেসের। রবিবার রাত থেকেই সারা দুনিয়ার ফুটবল প্রেমীদের প্রার্থনা, সেরে উঠুন গোমেস। একইসঙ্গে সনের কান্না দেখে অনেকেই বলছেন, এই স্পিরিটটাই যে কোনও খেলার পুঁজি।

Comments are closed.