অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন নেই, জন্মনিয়ন্ত্রণ হবে এই পথেই, উপায় বললেন বিশেষজ্ঞরা

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জন্মনিয়ন্ত্রণ হবে, তবে সেটা বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়েই।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: জন্মনিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে নতুন কর্মসূচি চালু করতে চলেছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। বুঝিয়ে সুঝিয়ে পুরুষদের নির্বীজকরণ করাতে হবে, নচেত সরকারি কর্মচারীদের মাইনে কাটা যাবে। জন্মনিয়ন্ত্রণের এমন কঠোর ফরমান তো জারি হল, তবে পুরুষদের নির্বীজকরণ বা ভ্যাসেকটমি নিয়ে এখনও অনেক ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত রয়েছে সমাজে। একই চিন্তাভাবনা রয়েছে মহিলাদের বন্ধ্যাত্বকরণ নিয়েও। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জন্মনিয়ন্ত্রণ হবে, তবে সেটা বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়েই।

    একটা সময় ছিল যখন মধ্য ও নিম্নবিত্ত পরিবারে জন্মনিয়ন্ত্রণের দায় বর্তাত শুধুমাত্র মহিলাদের উপর। সময় পাল্টানোর সঙ্গে বদলেছে সমাজের দৃষ্টিভঙ্গিও। সেই বদলের হাত ধরেই কন্ডোম, পিল ঢুকে পড়েছে নিম্নবিত্তদের ঘরেও। ভ্যাসেকটমিও বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে সমাজের নানা স্তরেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গর্ভনিরোধক ব্যবস্থা এখনও অধিকাংশ মেয়ের নাগালের বাইরে। সরকারি বন্ধ্যাকরণ শিবিরে তারা শুধু লক্ষ্যমাত্রার হিসেব হয়েই থেকে যায়।

    ড্রাগ কন্ট্রোল, হরমোন থেরাপি, বার্থ কন্ট্রোল পিল-সহ জন্মনিয়ন্ত্রণের নানা পদ্ধতি রয়েছে। কী কী সেই পদ্ধতি?

    বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অনেকক্ষেত্রেই ভ্রান্ত ধারণা থাকে জন্মনিয়ন্ত্রক পিল থেকে মানসিক অবসাদ জন্ম নেয়। কিন্তু সেটা একেবারেই নয়। ডাক্তারের পরামর্শ মতো সঠিক ডোজের ওষুধে বরং মানসিক অবসাদ দূর হয়। ‘প্রিমেনস্ট্রুয়াল ডিসফোরিক ডিসঅর্ডার’ দূর করতে অনেকক্ষেত্রেই গর্ভনিরোধক বড়ি প্রেসক্রাইব করেন ডাক্তাররা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সঠিক মাত্রায় এই বড়ি নিলে মূত্রনালি ও জরায়ুর ক্যানসারের ঝুঁকিও অনেক কমে যায়। তবে বার্থ কন্ট্রোল পিল নেওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ দরকার। সঙ্গমের পরে অনেকেই মুড়িমুড়কির মতো গর্ভনিরোধক বড়ি নিয়ে থাকেন, এতে শরীরে ইস্ট্রোজেনের পরিমাণ কমে যায়, স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

    গর্ভনিরোধক বড়ি, আইইউডি এবং ইমপ্ল্যান্ট

    জন্মনিয়ন্ত্রণে হরমোনের বিশেষ ভূমিকা আছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হরমোনাল ইনট্রটারিন ডিভাইস (আইইউডি) এবং ইমপ্ল্যান্টে গর্ভনিরোধক বড়ির তুলনায় খুব মাত্রায় প্রজেস্টেরন থাকে। এই দুই ডিভাইস জন্মনিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকা নেয়। আইইউডি জরায়ুতে ইনজেক্ট করা হয়, অন্তত ১০ বছরের জন্য গর্ভধারণ রোধ করা যায়। অন্যদিকে ইমপ্ল্যান্ট হাতে ইনজেক্ট করা হয়। এই ডিভাইসও গর্ভনিরোধক হিসেবে কাজ করে।

    শিকাগো ইউনিভার্সিটির স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ গিলিয়ান বলেছেন, জন্মনিয়ন্ত্রণের সবচেয়ে সুরক্ষিত পদ্ধতি কন্ডোম। যৌন সংক্রামক ব্যধির ঝুঁকিও কমায় কন্ডোম।

    আরও পড়ুন: নির্বীজকরণ না করাতে পারলে মাইনে কাটার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এল মধ্যপ্রদেশ সরকার

    জন্মনিয়ন্ত্রণে আরও একটি বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি হল, ডেপো-প্রোভেরা শটস। এটি এমন একটি হরমোনাল ইঞ্জেকশন যা গর্ভনিরোধক হিসেবে কাজ করে। প্রতি তিন মাস অন্তর এই ইঞ্জেকশন নিতে হয়। তবে শারীরিক অবস্থা বিচার করে অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েই এই পদ্ধতি ব্যবহার করা উচিত।

    বার্থ কন্ট্রোল প্যাচ

    গর্ভনিরোধক হিসেবে অনেক ডাক্তারই প্যাচ ব্যবহার করার পরামর্শ দেন।এটি শরীরের যে কোনও জায়গায় ত্বকের উপর লাগানো হয়। এটি হরমোনাল ডিভাইস, যা শরীরে হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখে, প্রেগন্যান্সি আটকায় নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। এই পদ্ধতি ৯১ শতাংশ ক্ষেত্রেই সুফল দেয়, তবে হরমোন থেরাপি চলছে যাঁদের, তাঁদের ক্ষেত্রে প্যাচ ব্যবহার করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

    পুরুষদের নির্বীজকরণ বা ভ্যাসেকটমির ক্ষেত্রে স্পার্ম বহনকারী টিউবটি অস্ত্রোপচার করে কেটে ফেলা হয়। ফলে টেস্টিস থেকে স্পার্ম নিঃসরণ বন্ধ হয়। ভ্যাসেকটমি একটি স্থায়ী বন্ধ্যাত্বকরণ পদ্ধতি। সম্প্রতি একটি জার্মান সংস্থা পুরুষদের জন্য এনেছে বিমেক এসএলভি ভালভ। ওজনে ১ আউন্সেরও কম এই ভালভের দৈর্ঘ্য মাত্র ১.৮ সেন্টিমিটার। মাত্র ৩০ মিনিটেই পুরুষাঙ্গের মধ্যে প্রতিস্থাপন করা যাবে এটি। এবং এটি কাজ করবে একেবারে ভ্যাসাকটমির মতোই। তবে এটি কোনও স্থায়ী পদ্ধতি নয়। ভালভের ‘অফ-অন’ সুইচ ব্যবহার করে ইচ্ছামতো জন্ম নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন পুরুষরা।

    মেল কনট্রাসেপটিভ ইঞ্জেকশন নিয়েও গবেষণা চালাচ্ছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)। সার্জারি ছাড়াই এই ইঞ্জেকশন জন্মনিয়ন্ত্রণে বিশেষ উপযোগী হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। লোকাল অ্যানাস্থেশিয়া করে এই পলিমারটি টেস্টিক্যালসের কাছে শুক্রাণু বহনকারী টিউবে প্রয়োগ করা হবে। শুক্রাণু নির্গমনকে বাধা দেবে এই ইঞ্জেকশন। এক বার গ্রহণ করলে প্রায় ১৩ বছর পর্যন্ত কার্যকরী থাকবে এটি।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More