বুধবার, অক্টোবর ১৬

আরবি ০১: প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমানের এই নামের পিছনে রয়েছে গর্বের ইতিহাস, জানাল ভারতীয় বায়ুসেনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সামরিক পরিভাষায় রাফালকে বলে ‘মাল্টিরোল কমব্যাট এয়ারক্র্যাফ্ট’। যে ফরাসি সংস্থা এই যুদ্ধবিমান তৈরি করে সেই দাসো অ্যাভিয়েশন রাফালকে বলে ‘ওমনিরোল এয়ারক্র্যাফ্ট।’ গত শুক্রবারই চুক্তিমাফিক ৩৬টি রাফালের মধ্যে প্রথম রাফালটি ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে এসে গেছে। শক্তিশালী, আধুনিক এই রাফালের টেল নম্বর দেওয়া হয়েছে ‘আরবি ০১। (RB-01)’এই নামকরণ নাকি নিছকই কাকতালীয় নয়। ভারতীয় বায়ুসেনা জানাচ্ছে, এই বিশেষ নামের পিছনে রয়েছে এক গর্বের ইতিহাস।

আর কে এস ভাদুরিয়া। ভারতীয় বায়ুসেনার এই ভাইস চিফ অব এয়ার স্টাফই পরবর্তী বায়ুসেনা প্রধানের দায়িত্ব নিতে চলেছেন। তাঁর নামেই ফ্রান্স থেকে কেনা প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমানের টেল নম্বর রাখা হয়েছে ‘আরবি ০১’।  পুণের ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি থেকে ভারতীয় বায়ুসেনার ফাইটার স্ট্রিমে যোগ দিয়েছিলেন ১৯৮০ সালে । ২৬ রকমের যুদ্ধবিমান ওড়ানোর প্রশিক্ষণ রয়েছে তাঁর। প্রায় ৪২৫০ ঘণ্টা আকাশে যুদ্ধবিমান ওড়ানোর অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি একাধারে ক্যাটেগরি ‘এ’পর্যায়ের ফ্লাইং ইনস্ট্রাকটর, অন্যদিকে পাইলট অ্যাটাক ইনস্ট্রাকটর। ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে তাঁকে‘সোর্ড অব অনার’সম্মান দেওয়া হয়েছে। তা ছাড়া, বায়ু সেনা মেডেল ও পরম বিশিষ্ট মেডেলও পেয়েছেন তিনি।

আর কে এস ভাদুরিয়া

রাফাল বিমান কেনার সময় ফরাসি সরকারের সঙ্গে মধ্যস্থতাকারী দলের সদস্য ছিলেন ভাদুড়িয়া। বিমান বাহিনীর প্রথম অফিসার হিসাবে রাফাল চালানোর অভিজ্ঞতাও রয়েছে তাঁর। বায়ুসেনা সূত্র জানাচ্ছে, ভারতীয় বায়ুসেনার এই বর্ষীয়াণ ও অভিজ্ঞ এয়ার মার্শালের নামেই তাই প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমানের নামকরণ করা হয়েছে।

’৭১-এ পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধে ভারতীয় বায়ুসেনার তুরুপের তাস ছিল মিগ যুদ্ধবিমান। ক্রমশ তার আয়ু ফুরিয়ে আসছে। তার বদলে এসেছে রাশিয়ার সুখোই যুদ্ধবিমান। কিন্তু সুখোই-এর থেকেও অত্যাধুনিক বিমান হল সব থেকে হাল্কা, ‘লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফ্ট’ (এলসিএ)।ভারতে এলসিএ ‘তেজস’ তৈরি হচ্ছে। এই সুখোই থেকে এলসিএ-র জার্নিতে আধুনিক ও শক্তিশালী ‘মাল্টিরোল কমব্যাট এয়ারক্র্যাফ্ট’ কেনার পরিকল্পনা নিয়েছিল ভারত। ফ্রান্সের তৈরি এই রাফাল যুদ্ধবিমান প্রতিপক্ষের উপর আঘাত হানতে পারে সুনিপুণ দক্ষতায়। অনেক উঁচু থেকে হামলা চালানো, যুদ্ধজাহাস ধ্বংস করা, মিসাইল নিক্ষেপ এমনকী পরমাণু হামলা চালানোর ক্ষমতাও রয়েছে রাফালের। এই মুহূর্তে পৃথিবীতে যে সব যুদ্ধবিমান সবচেয়ে শক্তিধর বলে বিবেচিত, তাদের মধ্যে অন্যতম রাফাল। এই যুদ্ধবিমান হাতে আসার পরে ভারতীয় বায়ুসেনার সক্ষমতা এক লাফে অনেকখানি বেড়ে যাবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

Comments are closed.