পঞ্জাবে করোনা আতঙ্ক, বিমানবন্দর থেকে নিখোঁজ ইরান, ইতালি-ফেরত ৩৩৫ জন যাত্রী, সংক্রমণের সন্দেহ প্রবল

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, গত দু’দিনে ৬,০১১ জন যাত্রী অমৃতসর বিমানবন্দরে নেমেছিলেন। তাঁদের বেশিরভাগই করোনা আক্রান্ত দেশগুলি থেকেই ট্রাভেল করেছেন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: গোটা দেশ কাঁপছে করোনা ভয়ে। ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ছুঁয়েছে ৮৪। দেশের সমস্ত বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দরগুলিতে চলছে বিশেষ থার্মাল স্ক্রিনিং। নিরাপত্তার কড়াকড়ি সত্ত্বেও পঞ্জাবে খোঁজ মিলছে না বিদেশ ফেরত ৩৩৫ জন যাত্রীর। কপালে চিন্তার ভাঁজ চওড়া হয়েছে স্বাস্থ্য আধিকারিকদের।

    রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, গত দু’দিনে ৬,০১১ জন যাত্রী অমৃতসর বিমানবন্দরে নেমেছিলেন। তাঁদের বেশিরভাগই করোনা আক্রান্ত দেশগুলি থেকেই ট্রাভেল করেছেন। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ওই যাত্রীদের মধ্যে হংকং, সিঙ্গাপুর, জাপান, ইতালি, ইরান এমনকি চিন-ফেরত যাত্রীরাও ছিলেন। স্ক্রিনিংয়ের পরে সকলকেই আইসোলেশন ইউনিটে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দেখা যায় তাঁদের মধ্যে ৩৩৫ জন নিখোঁজ। চিন্তার বিষয়ে তাঁদের একজনকেও এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

    পঞ্জাবে স্বাস্থ্য ও পরিবার উন্নয়ন দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, অমৃতসর বিমানবন্দরে গত কয়েকদিনে মোট ৫৮,৪৯৪ জন যাত্রীর স্ক্রিনিং হয়েছে।তাঁদের মধ্যে সাত জনের শরীরে ভাইরাসের উপসর্গ ধরা পড়েছিল। তাঁরা এখনও কোয়ারেন্টাইনেই রয়েছেন। যে যাত্রীরা নিখোঁজ তাঁদের কারও শরীরে সংক্রমণ থাকলেও থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। বলেছেন, অনেক সময় স্ক্রিনিংয়ে উপসর্গ ধরা পড়ে না। পরে রক্ত ও দেহরসের নমুনা পরীক্ষা করে ভাইরাসের খোঁজ মেলে। এক্ষেত্রেও তেমনটাই হলে সেটা বিপদ আরও বাড়াবে।

    দেশে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও বেড়ে চলেছে। চলতি মাসের প্রথম থেকে এখনও অবধি মোট ৮৪ জন ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন। দিল্লিতেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭। মৃত্যু হয়েছে একজনের। দিনকয়েক আগে কর্নাটকের কালবুর্গি জেলায় ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছিল সৌদি ফেরত ৭৬ বছরের এক বৃদ্ধের। সব মিলিয়ে দেশে ভাইরাসের সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা দুই। উত্তরপ্রদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১২, রাজস্থানে ৩, লাদাখে ৩, জম্মু-কাশ্মীরে দু’জনের শরীরে মিলেছে মারণ জীবাণু। এদিকে ভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়েছে মহারাষ্ট্র, তেলঙ্গানা, কেরল, তামিলনাড়ু ও কর্নাটকেও। মহারাষ্ট্রে আক্রান্ত ১৪ জন।  মুম্বই, পুনে, নবি মুম্বই, নাগপুর ও পিম্প্রি চিঞ্চওয়াদ এই পাঁচ শহরে সব সিনেমা হল, জিম ও সুইমিং পুল বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার।  সংস্থার এক কর্মীর শরীরে করোনার উপসর্গ ধরা পড়ার পরে বেঙ্গালুরুতে নিজেদের অফিস খালি করে দিয়েছে ইনফোসিস। পঞ্জাবেও আগামী ৩১ মার্চ অবধি স্কুল-কলেজ, সিনেমা হল-রেস্তোরাঁ সবকিছুই বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে সরকার।

    করোনা আতঙ্কে দেশের ২১টি বিমানবন্দরে এখনও অবধি লক্ষাধিক বিদেশ ফেরত যাত্রীর স্ক্রিনিং হয়েছে। সরকারি সূত্রে খবর, মোহালি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৬,৪৪৭ জন যাত্রী ও অমৃতসর ওয়াঘা সীমান্তের চেকপোস্টে ৬,৮৯২ জন এবং গুরদাসপুর, ডেরা বাবা নানক চেক পোস্টে শুক্রবার থেকে মোট ১৬,৩৭৬ জনের স্ক্রিনিং হয়েছে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More