শুক্রবার, নভেম্বর ১৫

কনফার্মড টিকিটের জন্য আর অপেক্ষা নয়, নতুন দিন আসছে ভারতীয় রেলে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বেড়াতে যেতে চান কিন্তু কনফার্মড টিকিটের চিন্তায় সেটা বাতিল করতে হয়? উত্তর যদি হ্যাঁ হয় তবে আর বেশি দিন চিন্তা করতে হবে না। কেন্দ্রীয় সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে কনফার্মড টিকিটের জন্য আর অপেক্ষায় বসে থাকতে হবে না। ভারতীয় রেলে এমন এক বদল আসছে যাতে ট্রেন সফরের নতুন মজা মিলবে। প্রতিটি ট্রেনেই বাড়তে চলেছে আসন সংখ্যা। আর তাতেই কনফার্মড টিকিট পাবেন আরও অনেক যাত্রী।

রেলমন্ত্রক আগামী ডিসেম্বর থেকেই নতুন ব্যবস্থা চালু করে দিতে চাইছে। এখন দূরপাল্লার ট্রেনে দু’টি পাওয়ার ভ্যান থাকে। এর সাহায্যেই ট্রেনে লাইট, ফ্যান, মোবাইল চার্জিং পয়েন্ট ইত্যাদি চলে। এখন রেল চাইছে এই বিদ্যুতের জোগান নেওয়া হবে ওভারহেড ইলেক্ট্রিক তার থেকে। এর ফলে দু’টি পাওয়ার ভ্যানের জায়গায় দু’টি বগি যুক্ত হবে ট্রেনে। আর তাতেই এক লাফে প্রতিটি ট্রেনে আসন সংখ্যা বেড়ে যাবে।

এতে রেলের আয়ও বাড়বে। এখন পাওয়ার ভ্যান চালানো হয় ডিজেলের মাধ্যমে। সেটা বন্ধ হলে খরচ কমবে ডিজেল বাবদ। সেই সঙ্গে বাড়তি আসন বিক্রি হবে। বাড়বে আয়।

এছাড়াও অন্য পথেও ট্রেনে কনফার্মড টিকিট বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে রেল। ইতিমধ্যেই চালু হয়েছে টার্মিনাল ডিভাইল ব্যবহার। এর মাধ্যমে ওয়েটিং লিস্টে থাকা যাত্রীদের কনফার্মড টিকিট দেওয়ার ব্যবস্থা চালু হয়েছে।

এই ব্যবস্থায় কোনও যাত্রী যদি ট্রেন ছেড়ে দেওয়ার পরেও টিকিট ক্যানসেল করেন সেক্ষেত্রেও সেই আসন অন্য যাত্রীকে দিয়ে দিতে পারবেন ট্রেনে থাকা টিকিট পরীক্ষক। আগের নিয়ম অনুযায়ী যেটা সম্ভব ছিল না। টিটিই যদি দেখেন কোনও আসন ফাঁকা তবে সঙ্গে সঙ্গে তিনি সেটা কাউকে দিয়ে দিতে পারতেন না। নির্দিষ্ট স্টেশন থেকে কোনও যাত্রী না উঠলে পরবর্তী দু’টি স্টপেজ পার হওয়ার পরেই টিটিই সেই আসন অন্য কাউকে দিতে পারতেন। কিন্তু এখন আর সেই সমস্যা থাকবে না।

ইতিমধ্যেই কিছু রাজধানী ও শতাব্দী এক্সপ্রেসে এই সুবিধা দেওয়া শুরু হয়েছে। এবার সেটা সব ট্রেনেই করার কথা ভাবছে রেল মন্ত্রক। টিটিইদের হাতে থাকবে একটি টার্মিনাল ডিভাইস। যা মূল টার্মিনাল সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত থাকবে। ফলে কোনও যাত্রী টিকিট ক্যানসেল করলে সঙ্গে সঙ্গেই টিটিই জানতে পেরে যাবেন। ফলে সঙ্গে সঙ্গেই ফাঁকা হওয়া আসন ওয়েটিং লিস্টে থাকা কোনও যাত্রীর জন্য বরাদ্দ করা যাবে।

Comments are closed.