শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০

সাংসদের সন্তানকে কোলে নিয়ে দুধ খাওয়াচ্ছেন স্পিকার! দিব্য চলল পার্লামেন্টের অধিবেশন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভরা পার্লামেন্টে চলছে গুরুগম্ভীর অধিবেশন। মন দিয়ে সকলের বক্তব্য শুনছেন স্পিকার। যেখানে যা বলার দায়িত্ব তাঁর, বলছেন তা-ও। কিন্তু তাঁর হাত দু’টি ব্যস্ত অন্য কাজে। এক হাতে ধরে রেখেছেন এক রত্তি এক শিশুসন্তানকে। অন্য হাতে দুধের বোতল ধরে রয়েছেন সেই শিশুর মুখে। অধিবেশন চলছে অধিবেশনের মতো, শিশুর যত্নেও খামতি পড়ছে না একটুও।

দিন কয়েক আগে এমনই অসাধারণ এক দৃশ্যের সাক্ষী থেকেছে নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্টে। পার্লামেন্টের গণ্ডি ছাড়িয়ে সে দৃশ্য এখন রীতিমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়াতেও। নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্টের স্পিকার ট্রেভর ম্যালার্ডকে একই সঙ্গে দু’টি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলাতে দেখে মুগ্ধ নেট দুনিয়া। প্রথমে সকলে ভেবেছিলেন, ট্রেভরেরই সন্তান তাঁর কোলে। কিন্তু পরে জানা গিয়েছে অন্য তথ্য।

বুধবার নিজেই এই ছবি টুইটারে পোস্ট করেন ট্রেভর ম্যালার্ড। সেই পোস্ট থেকেই জানা যায়, ম্যালার্ডের কোলে যে শিশুটি রয়েছে, সে নিউজিল্যান্ডের সাংসদ তামাতি কফির দেড় মাসের সন্তান। সদ্য বাবা হয়েছেন তামাতি।  পিতৃত্বকালীন ছুটির শেষে বুধবারই পার্লামেন্টে আসেন তামাতি। কিছু পরে কান্নাকাটি শুরু করে সে। তখনই তামাতিকে সাহায্য করতে অধিবেশন চলাকালীন স্পিকারের পাশাপাশি ‘বেবি সিটার’-ও হয়ে ওঠেন ম্যালার্ড।

তামাতি জানান, অধিবেশনে যোগদানের পর থেকে পার্লামেন্টের প্রত্যেক সহকর্মীর থেকে তিনি যে ভাবে সাহায্য পেয়েছেন, তাতে তিনি আপ্লুত। দুধের শিশুকে সঙ্গে নিয়ে আসা ছাড়া তাঁর কোনও উপায় ছিল না, কারণ সমকামী তামাতির শিশু জন্মেছে সারোগেট মাদারের কোলে।

তবে পার্লামেন্টে শিশুকে সঙ্গে নিয়ে কাজে যোগদানের ক্ষেত্রে তামাতি কফি-ই অবশ্য প্রথম রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নন। গত বছরেই সেপ্টেম্বর মাসে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডের্ন নিউ ইয়র্কে রাষ্ট্রপুঞ্জের সভায় সন্তানকে কোলে নিয়েই বক্তব্য পেশ করে তাক লাগিয়ে দেন সকলকে।

তার আগে ২০১৭ সালের মে মাসে অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টে সিনেটর লারিসা ওয়াটারস তার দু’মাসের শিশুকন্যা আলিয়া জয়কে বুকের দুধ খাইয়ে নজির গড়েছিলেন। কিন্তু এক জন বাবাও যে একই ভাবে সন্তানের খেয়াল রাখতে পারেন, তাকে নিয়ে পার্লামেন্টে আসতে পারেন, এবং সেই বাবাকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন অন্য এক বাবা, এই ঘটনা বোধ হয় এই প্রথম।

সন্তানকে পালনের দায়িত্ব কেবল মায়ের একা নয়। মা-বাবা দু’জনেরই এ বিষয়ে সমান অবদান থাকা উচিত। এ কথা খাতায়-কলমে সকলে মেনে নিলেও, বাস্তবে দেখা যায় বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মায়ের একার উপর দায়িত্বের ভার অনেক বেশি পড়ে যায়। বিশেষ করে, সন্তান যখন দুধের শিশু। সেই ধারণাই ভেঙে খানখান হয়ে গেল নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্টে। স্পিকার ট্রেভর ম্যালার্ড জয় করে নিলেন হাজারো মানুষের মন।

ট্রেভর নিজেই এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে, শিশুটিকে ‘ভিভিআইপি’-র সম্মান জানিয়েছেন। শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন তাঁর মাকেও।

Comments are closed.